অ্যাড. আনোয়ারুল হাকিম (আরাফাত)


বাংলাদেশ বার কাউন্সিল এদেশের আইনজীবীদের অভিভাবকতুল্য প্রতিষ্ঠান।এই প্রতিষ্ঠান আইনজীবী হওয়ার তিন ধাপের তথা প্রিলিমিনারী,লিখিত এবং ভাইবার পরীক্ষা নিয়ে একজন শিক্ষানবিশ আইনজীবী কে স্বয়ংসম্পুর্ণ আইনজীবী হিসেবে জাতি,সমাজ এবং দেশের সামনে উপস্থাপন করে। বর্তমানে এ পরীক্ষা বার কাউন্সিলের নানা প্রতিকুলতার কারনে প্রতিবছর হচ্ছেনা যার দরুন শিক্ষানবিশ আইনজীবীরা মানষিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে চরম কষ্ঠে দিনাতিপাত করছে ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে উদীয়মান আইন অঙ্গনের উজ্জল নক্ষত্র আর দেশ হারাচ্ছে মেধাবী আইনজীবী। দেশের স্বপ্ন দ্রষ্ট্রা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে অন্যান্য সেক্টরে কর্মরত অফিসারের ন্যায় দক্ষ,মেধাবী তরুণ আইনজীবীর বিকল্প নেই। দেশে ন্যায় বিচার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় আইনজীবী ও বিচারকের সমান ভুমিকা থাকে। এ দেশে সহকারি জজ নিয়োগ ও বিসিএস পরীক্ষা নিয়মিত হলেও অ্যাডভোকেটশীপ পরীক্ষা নিয়মিত হচ্ছেনা। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ অ্যাডভোকেটশীপ পরীক্ষা প্রতি বছর নেওয়ার জন্য এক মামলায় সুস্পষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন যা দেশের সর্বোচ্চ আইন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংবিধানের ১১১ অনুচ্ছেদ অনুসারে সংশ্লিষ্ট সকলে মানতে বাধ্য। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী এ পরীক্ষা প্রতি বছর নেয়া উচিত। ব্যর্থতায় এ দেশে বেকারত্ব সহ শিক্ষানবীশদের মধ্যে চরম হতাশা বাড়বে। এই বছর লিখিত পরীক্ষায় কতিপয় দুষ্কৃতিকারীদের কারনে অনেকের স্বপ্ন ভেঙ্গে গেছে সত্যিই। এই হতাশা অচিরেই কেটে যাবে যদি প্রতিবছর নিয়মিত পরীক্ষা হয়। সংশ্লিষ্টদের কাছে আকুল আবেদন আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী নিয়মিত পরীক্ষা হউক।

লেখকঃ অ্যাড. সিনিয়র আইন কর্মকর্তা ,অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •