এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় অবশেষে পৌরসভার অর্থায়নে এডিবির ১১ লাখ ৮৯৯ টাকা বরাদ্দে নতুন একাডেমিক ভবন পেতে যাচ্ছে দ্বীনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চকরিয়া আল-ইয়ামীন মডেল মাদরাসা। শনিবার ১৯ ডিসেম্বর মাদরাসা মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ভবন নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন মেয়র আলমগীর চৌধুরী।

চকরিয়া আল-ইয়ামীন মডেল মাদরাসা কমিটির সভাপতি আক্তার আহমদ বিএ অর্নাস এমএ’র সভাপতিত্বে ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পীরে কামেল কবির আহমদ আযমী, চকরিয়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রেজাউল করিম, অধ্যাপক আবু নঈম আজাদ, অধ্যাপক বশির আহমদ, চিরিঙ্গা বাসস্টেশন জামে মসজিদের খতিব কফিল উদ্দিন এমএ, মাস্টার জিএম রুকুনউদ্দিন, আরিফুল কবির ও মাদ্রাসার সুপার জয়নাল আবেদীন, মাদরাসার সকল শিক্ষক, অভিভাবক এবং সুধীজন।

মাদরাসা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার আলেম-ওলামাদের মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে এবং মসজিদ-মাদরাসার উন্নয়নে বদ্ধপরিকর। সেই আলোকে সরকার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আলেম-ওলামাদের সবধরণের সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছেন। পাশাপাশি দেশের প্রতিটি এলাকায় মসজিদ-মাদরাসা গুলোকে আধুনিকায়ন করতে প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দ দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে সারাদেশে ৪২৫টি মডেল মসজিদ উপহার দিয়েছেন ধর্মপ্রাণ দেশবাসিকে। নির্মিতব্য একটি মসজিদ নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ৫ কোটি টাকার বেশি।

তিনি বলেন, আমি চকরিয়া পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হবার পর বিগত পাঁচবছরে আলেম-ওলামাদের পাশে ছিলাম। মসজিদ-মাদরাসার উন্নয়নে সাধ্যমতো অর্থসহায়তা দিয়েছি। পৌরসভা এলাকার ৯টি ওয়ার্ডের ৭০টি মসজিদের উন্নয়নে অর্থবরাদ্দ দিয়েছি। পর্যায়ক্রমে এখনো প্রায় প্রত্যেক মসজিদে অব্যাহত আছে অনুদান দেয়ার কার্যক্রম। আগামীতেও আলেম-ওলামা এবং মসজিদ-মাদরাসাসহ সকল ধর্মীয় এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •