নিজস্ব প্রতিবেদক:
মানবিক বিপর্যয়কালে স্থানীয়দের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কক্সবাজারে কর্মরত চারটি বেসরকারী সংস্থার উদ্যোগে লোকালাইজেশন সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) স্থানীয় একটি আবাসিক হোটেলের সম্মেলন কক্ষে যৌথভাবে সেমিনারটি আয়োজন করে হেল্প কক্সবাজার, জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থা, পাল্স এবং শেড।

সেমিনারে লোকালাইজেশন এর উপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পাল্স এর নির্বাহী পরিচালক আবু মোরশেদ চৌধুরী (খোকা)।

প্রবন্ধে ২০০৭ সালে প্রিন্সিপাল অফ পার্টনারশিপ এর মধ্যে, লোকালাইজেশন এর বৈশ্বিক যাত্রা ২০১৫ সালে চার্টার ফর চেঞ্জ, ২০১৬ গ্র্যান্ড বার্গেইন থেকে এর বিবর্তন, ২০১৮ সালে বাংলাদেশে গ্র্যান্ড বার্গেইন মিশন রিপোর্টসহ এর প্রয়োজনীয়তা উপস্থাপন করা হয়। মানবিক বিপর্যয়কালে স্থানীয় জনগোষ্ঠী, জনপ্রতিনিধি, সিভিল সোসাইটি ও স্থানীয় সংগঠনের আদি দক্ষতা এবং নেতৃত্বকে সম্মান জানিয়ে ভবিষ্যতে যেকোন আপদ কালীন সময়ে বিপর্যয়ে সাড়াদানে তাদের প্রচলিত আদি দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে আরও টেকসই যুগোপযোগী দক্ষতায় উন্নীতকরণে গুরুত্বারোপ করা হয়।

ব্র্যাক এর সার্বিক সহযোগিতায় উখিয়া উপজেলার ৪ ইউনিয়নের স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি এবং সিভিল সোসাইটি প্রতিনিধি নিয়ে সেমিনারের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক শিউলি শর্মা।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৫ আগষ্ট পরবর্তী মায়ানমারের বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা আগমনের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত উখিয়া উপজেলার অন্তর্গত ৪টি ইউনিয়নে ব্র্যাক এবং অস্ট্রেলিয়ান এইড এর সার্বিক সহযোগিতায় কক্সবাজারে স্থানীয় চারটি সংগঠন যথাক্রমে হেল্প কক্সবাজার, জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থা, পাল্স এবং শেড ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয় জনগোষ্ঠীর বহুমাত্রিক দক্ষতা উন্নয়ন, জীবন-জীবিকা, শান্তিপূর্ণ সামাজিক অবস্থান, লোকালাইজেশন, লিঙ্গ ভিত্তিক বৈষম্য দূরীকরণ এবং অবহেলিত বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় একীভূত করণের লক্ষ্যে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনায় কাজ করে যাচ্ছে।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি এবং প্যানেল সদস্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- উখিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী, জেলা সমাজসেবা সহকারী পরিচালক মো: সফি উদ্দীন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সুব্রত বিশ^াস, জেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো: শহীদ উল্লাহ, অক্সফামের কক্সবাজার প্রতিনিধি আশুতোষ দে, ব্র্যাকের  হেড অফ হোস্ট কমিউনিটি আবদুল মতিন সরদার ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার পার্টনারশীপ মাযহার উল ইসলাম।

শেড এর উপ-পরিচালক মো: শওকত আলী সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সেমিনারে অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, দীর্ঘদিনপর রোহিঙ্গা আগমনে সৃষ্ট মানবিক বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয় জনগণের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ব্র্যাকসহ ৪টি বেসরকারী সংস্থা এগিয়ে আসার জন্য ধন্যবাদ জনান। মানবিক এখন আমাদের উপযুক্ত সময় হচ্ছে সম্মিলিতভাবে ইউনিয়ন ভিত্তিক চাহিদা নিরুপনের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা করা এবং সরকারী বেসরকারী সংস্থাসমূহের সমন্বয়ে বাস্তবায়ন করা।

সেমিনারের বিশেষ অতিথি এবং উদ্বোধক ব্র্যাকের এরিয়া পরিচালক হাসিনা আক্তার হক বলেন, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা আগমনের ফলে স্থানীয়ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের বহুমাত্রিক দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে প্রাথমিকভাবে ৪টি স্থানীয় এনজিওর মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। ভবিষ্যতে স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়নের লক্ষে এর কর্মপরিধি আরো বিস্তৃতি লাভ করবে, প্রয়োজন স্থানীয় জনগণে সক্রিয় অংশগ্রহণ ও সম্পৃক্ততা।

লোকালাইজেশন সেমিনারে উখিয়া প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সাইফুর রহিম শাহিন, রামু প্রেসক্লাবের সভাপতি নুরুল ইসলাম সেলিম, সাংবাদিক আমানুল হক বাবুল, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ থেকে আগত জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ রোহিঙ্গা আগমনের ফলে স্থানীয়ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ খাতসমূহ বিশেষ করে শিক্ষা, পরিবেশ, জীবন জীবিকাসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নের কথা সুপারিশ করেন।

হেল্প কক্সবাজার এর নির্বাহী পরিচালক আবুল কাশেম উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •