সিবিএন ডেস্ক:
রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়া যে মামলা করেছে তা পরিচালনা করতে আগামী কয়েক বছরে খরচ হবে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ ডলার (প্রায় ১০০ কোটি টাকা)। এর মধ্যে এখন পর্যন্ত ১২ লাখ ডলার সংগ্রহ করা হয়েছে, যার মধ্যে বাংলাদেশ দিয়েছে পাঁচ লাখ ডলার। বাকি অর্থ সংগ্রহের জন্য সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশকে অনুরোধ করেছে বাংলাদেশ।

সৌদি আরবে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত গণহত্যার মামলা পরিচালনায় তহবিল গঠনে সৌদি সরকারের কিং সালমান হিউম্যানিটারিয়ান এইড অ্যান্ড রিলিফ ফান্ডের সহায়তা চেয়েছেন ওই দেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারি।

রাষ্ট্রদূত রবিবার রিয়াদে সৌদি সরকারের কেএস রিলিফ ফান্ডের সুপারভাইজার জেনারেল আব্দুল আজিজ আল রাবেয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎকালে এ অনুরোধ জানান।

রাষ্ট্রদূত কেএস রিলিফ ফান্ডকে জানান, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত গণহত্যা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের মামলা পরিচালনার জন্য এ পর্যন্ত মাত্র ১২ লাখ ডলার সংগৃহীত হয়েছে, যার মধ্যে বাংলাদেশ পাঁচ লাখ ডলার দিয়েছে। মামলা পরিচালনায় আগামী কয়েক বছরে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ ডলার প্রয়োজন হবে জানিয়ে রাষ্ট্রদূত কেএস রিলিফ ফান্ডকে উল্লেখযোগ্য অংশ প্রদান করার অনুরোধ জানান।

রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নিরাপদ ও উন্নত সুযোগসুবিধা সম্বলিত স্থানে স্থানান্তর করা হয়েছে জানিয়ে রিলিফ ফান্ডের কর্মকর্তাদের বাংলাদেশ সফরের আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত।

বৈঠকে দূতাবাসের পক্ষে মিশন উপপ্রধান এস এম আনিসুল হক ও কাউন্সেলর মো. হুমায়ূন কবির উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •