সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত, বাঁকখালী ও কোহেলিয়া নদী রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সবাজার জেলা শাখাসহ ১২টি পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

রবিবার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের মাধ্যমে এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, কক্সবাজারের উন্নয়ন প্রশ্নবিদ্ধ করতে সরকারি-বেসরকারি কয়েকটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। নির্বিচারে কাটা হচ্ছে পাহাড় ও প্যারাবন। উজাড় করা হচ্ছে বনাঞ্চল। সবচেয়ে ভয়াবহ হচ্ছে বাংলাদেশের দীর্ঘতম কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত দ্বিখন্ডিত করা হচ্ছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। এছাড়া সৈকতের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে গড়ে উঠা বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত ঝাউবন ধ্বংস করছে একাধিক চক্র। প্রভাবশালীরা উপকূলের প্যারাবন দখল করে একের পর এক চিংড়ি প্রকল্প গড়ে তুলছে। এই প্যারাবনে প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের জানমাল রক্ষা করছে।

স্বারকলিপিতে আরও বলা হয়, উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে কক্সবাজার বাঁকখালী নদী দখল করে প্লট তৈরি হচ্ছে। প্রতিনিয়ত এই নদীতে পৌরসভার বর্জ্য ফেলে ভরাট করা হচ্ছে। এতে নদী বিলিন হওয়ার শংকা রয়েছে। ইতোমধ্যে মহেশখালীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কোহেলিয়া নদী বিদ্যুৎ প্রকল্পের বর্জ্য দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে। যার দরূণ নদীটি নির্ভর প্রায় দুই হাজার জেলে বেকার হয়ে পড়েছে।

তাই এই অপরূপ প্রাকৃতিক সম্পদ রক্ষায় আপনার সন্তোষজন হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এসময় জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, কোনভাবেই কক্সবাজারের প্রাকৃতিক পরিবেশ বিনষ্ট হতে দেয়া যাবে না। এই দাবি বাস্তবায়নে শিগগিরই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি জেষ্ঠ্য সাংবাদিক ফজলুল কাদের চৌধুরীর নেতৃত্বে স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি জাফর আলম, সাধারণ সম্পাদক কলিম উল্লাহ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক কবি জসিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক এইচ,এম নজরুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক সমীর পাল, দপ্তর সম্পাদক দোলক ধর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এম.এ আজিজ রাসেল, নির্বাহী সদস্য ইসমাঈল সাজ্জাদ, নাগরিক আন্দোলনের আনছারুল করিম, কক্সিয়ান এক্সপ্রেসের সাধারণ সম্পাদক তারেক হায়দার, বাংলাদেশ গ্রীণ ভয়েস এর সভাপতি শহীদুল ইসলাম সাহেদ, একতা ছাত্র পরিষদের সভাপতি ইয়াছির আরাফাত, দরিয়া নগর গ্রীণ ভয়েস এর সভাপতি পারভেজ মোশারফ, টিম ইলেভেন এর সাধারণ সম্পাদক নুরুল আবছার, বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মা টিন টিন, ফাতেমা আক্তার শাহী, ফাতেমা আলম লিপি, এনামুল কবির,

কফিল উদ্দিন, মফিজুর রহমান, আজিজ রিপন, তানভীরুল ইসলাম, রায়হান সিদ্দিকী, সাইফুল হাসান সেকুল, মিরাজ মাহমুদ চৌধুরী, নওশাদুল ইসলাম, রানা মল্লিক, রিয়াদ মোহাম্মদ ফরিয়াদ, মোহাম্মদ সায়েম প্রমূখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •