সোয়েব সাঈদ, রামু:
রামুতে গরুর ক্ষেত খাওয়া নিয়ে ২ পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ৭ জন আহত হয়েছে। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সকাল ৯ টায় রামুর রাজারকুল ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের রামকোট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ১ জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।
হামলায় গুরতর আহত ওই এলাকার মৃত গুরা মিয়ার ছেলে নবী আলমের স্বজনরা জানান-তাদের চাষকৃত জমিতে একই এলাকার ছৈয়দ আহমদের গরু এসে কয়েকদফা ফসল বিনষ্ট করে। বিষয়টি ছৈয়দ আহমদকে জানালে তারা উল্টো ক্ষিপ্ত হয়ে নবী আলম ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা চালায়। হামলায় আহতরা হলেন-গুরা মিয়ার ছেলে নবী আলম, নবী আলমের স্ত্রী জমিলা বেগম, বোন আয়েশা ছিদ্দিকা পারভীন, ভাই শফি আলম, মা ছেনু আরা বেগম এবং মো. হোছনের ছেলে মো. কামাল।
আহতরা জানান-মৃত আশরাফুজ্জামানের ছেলে ছৈয়দ আহমদ, ছৈয়দ আহমদের ছেলে সোহেল, হেলাল, বেলাল, স্ত্রী জানু আরা বেগম ও মেয়ে রেশমীর নেতৃত্বে একটি দল পরিকল্পিতভাবে তাদের উপর দা, বটি, লাটি-সোটা নিয়ে এ হামলা চালায়। হামলাকারিদের দা এর কোপে নবী আলমের মাথায় গুরতর জখম পেয়েছেন। বর্তমানে তিনি রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।
এ ঘটনায় ছৈয়দ আহমদের পরিবারের এক সদস্যও আহত হয়ে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে জানার জন্য শনিবার রাতে অভিযুক্ত ছৈয়দ আহমদের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হয়। কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান জানিয়েছেন-হামলাকারি ছৈয়দ আহমদ ও তার পরিবারের সদস্যরা অন্যায়ভাবে একটি অসহায় পরিবারের সদস্যদের মারধর করেছে। এরআগে তারা একইভাবে এদের উপর হামলা চালিয়েছিলো। তিনি আহত নবী আলম ও তার পরিবারের সদস্যদের দেখতে যাবেন এবং এ ব্যাপারে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •