চট্টগ্রাম সংবাদদাতা:
রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ রাজউকের প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বাঁশখালীর কৃতিসন্তান প্রকৌশলী উজ্জ্বল মল্লিক। তিনি ইতোপূর্বে রাজউকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে গুরু দায়িত্ব পালন করেন।

উজ্জ্বল মল্লিক বলেন- ‘সবাই আমার জন্য আশীর্বাদ করবেন, যাতে এই গুরু দায়িত্ব সততা ও নিষ্টার সাথে পালন করতে পারি।’

তিনি বলেন, দীর্ঘ চাকুরী জীবনে অনেক সম্মান পেয়েছি, শুধু সততার কারনে। এজন্য আমি সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

প্রকৌশলী উজ্জ্বল মল্লিক ১৯৭৪ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর বাঁশখালীর কোকদন্ডী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা শ্রীযুক্ত বাবু অনন্ত মোহন মল্লিক ও মাতা শ্রীমতি বিশ্ব বানী মল্লিক।
জনাব মল্লিক ১৯৯০ সালে বাণীগ্রাম সাধনপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, চট্টগ্রাম কলেজ থেকে এইচএসসি ও বুয়েট থেকে কৃতিত্বের সাথে ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রী অর্জন করেন।
তিনি ২০০০ সালে রাজউকের সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। ২০০৫ সালে নির্বাহী প্রকৌশলী ও ২০১৬ সালে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন।
ব্যক্তিগত জীবনে তাঁর সহধর্মিণী ডা. সুমা মিতা বিশ্বাস। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ে সন্তানের জনক।

প্রকৌশলী উজ্জ্বল মল্লিক পেশাগত ব্যস্ততার বাইরে সমাজ ও মানুষের কল্যাণে বহুবিধ সংগঠনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িতে আছেন। এসবের মধ্যে বাংলাদেশ ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাবের পরিচালক, বাঁশখালী সমিতি ঢাকার সাধারণ সম্পাদক ও ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য সচিব, চট্টগ্রাম সমিতি ঢাকার কার্যনির্বাহী সদস্য, দি ইনস্টিটিশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের লাইফ ফেলো অন্যতম।

প্রকৌশলী উজ্জ্বল মল্লিক রাজউকের প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ পাওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন বাঁশখালী সমিতি চট্টগ্রামের সভাপতি প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া, সাধারণ সম্পাদক লায়ন এম আইয়ুব, বাণীগ্রাম সাধনপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি কেএম সালাহউদ্দীন কামাল, ইয়াং ওয়ানের জিএম মিল্টন রায়, মাস্টার মেরিনার ক্যাপ্টেন নুর মোহাম্মদ, ফোর এইচ গ্রুপের কারখানা ব্যবস্থাপক জুয়েল তাজিমসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •