শেফাইল উদ্দিন , কক্সবাজার সদর :

সম্প্রতি কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁহ কলেজ সংলগ্ন গ্যাস ক্রস ফিলিংয়ের অবৈধ কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণে সংঘটিত অগ্নিকান্ডে কয়েকজন শ্রমিক গুরুতর আহতের ঘটনা বিভিন্ন গণমাধ্যমে সচিত্র প্রতিবেদন আকারে প্রকাশ হয়। এতে এ অবৈধ ক্রস ফিলিং কারখানার নেপথ্যে আবু তৈয়ব প্রকাশ তৈয়ব চৌধুরী জড়িত থাকার তথ্যও প্রকাশ হয় অসংখ্য গণমাধ্যমে । কিন্ত এ সংবাদ প্রকাশের পর আবু তৈয়বের অবৈধ ব্যবসার ভোগি কিছু লোক দিয়ে বিভিন্ন পন্থায় নিজেকে এ অবৈধ ক্রস ফিলিং কারখানার সাথে জড়িত নয় বলে দাবি করে সাংবাদিকদের  হুমকি প্রদান করে চলছে ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে। অথচ ইতিপূর্বে   প্রশাসন ও স্থানীয়দের বাঁধার মুখে এ অবৈধ ব্যবসা কয়েকবার জরিমানা দিয়ে স্থান পরিবর্তন করে । সর্বশেষ অগ্নিকান্ডস্থলে এ কারখানা গড়ে তুলেছিল।

জানা গেছে , আবু তৈয়ব তার ভাই আবু ছৈয়দের মাধ্যমে রাতের আধাঁরে বড় বোতল থেকে ছোট বোতলে অবৈধভাবে ক্রস ফিলিং করে ওজনে কম দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয় ।   অপকর্ম আড়াল করতে তিনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে দায়িত্বরত ও দানবীর সাজে।  তার বিরুদ্ধে কলেজ পড়ুয়া এক তরুণীর সাথে  অনৈতিক সম্পর্কের ঘটনাও আছে । যা সে মোটা অংকের টাকায় ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ রয়েছে ।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে  আরো অপকর্ম ও অবৈধ বাণিজ্যের বস্তুনিষ্ঠ তথ্য ইতিমধ্যে সাংবাদিকদের হাতে এসেছে  । যা ক্রমান্বয়ে প্রকাশিত হবে।

এদিকে ক্রস ফিলিং প্রতারণার শিকার ক্রেতারা এ অবৈধ বাণিজ্যে জড়িতদের এ ঘটনার পর আইনের আওতায় কেন নেয়া হচ্ছে না তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অবিলম্বে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন।

সাংবাদিকদের হুমকি ও গ্যাস ক্রস ফিলিংয়ের  এর  অভিযোগের বিষয়ে আবু তৈয়বের  সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন , কিছু কুচক্রী মহল আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •