মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

বিতর্ক প্রতিযোগিতা মেধা ও মননের সুষ্ঠ বিকাশ ঘটায়। বিতর্কে তথ্য ও গবেষণামূলক অকাট্য যুক্তি উপস্থাপনের কারণে সঠিক দিক নির্দেশনামূল বক্তব্য পাওয়া যায়। শিক্ষাজীবনে বিতর্ক প্রতিযোগিতা নেতৃত্ব সৃষ্টিতে সহায়ক হয়। জীবনের অগ্রযাত্রাকে আশাবাদী করে তোলে। এজন্য সুষ্ঠু ও সৃজনশীল বিতর্ক প্রতিযোগিতাকে সবসময় ডকলের উৎসাহিত করা দরকার।

মঙ্গলবার ৮ ডিসেম্বর বিকেলে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটি ও জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রধান বিচারকের বক্তব্যে কক্সবাজার জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার ও সিনিয়র সহকারী জজ মৈত্রী ভট্টাচার্য একথা বলেন। বির্তক প্রতিযোগিতায় কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় দল ও কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় দল অংশ নেয়। সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা প্রদান বিষয়ে প্রচারণা বাড়াতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতার অংশ হিসাবে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

সিনিয়র সহকারী জজ ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের সভাপতি মৈত্রী ভট্টাচার্য কক্সবাজার জেলায় খুব উঁচু মানের বিতার্কিক গড়ে উঠায় প্রশংসা করে বলেন, এই বিতার্কিকেরা সমুদ্র নগরী কক্সবাজারের পরিচিতিকে অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে যাবে। তিনি বিতার্কিকদের উত্তরোত্তর আরো সাফল্য কামনা করেন।

প্রতিযোগিতায় কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় দল চ্যাম্পিয়ান হওয়ার গৌরব অর্জন করেন। একই স্কুলের ছাত্র মারুফ ইবনে হাসান সেরা বিতার্কিক নির্বাচিত হন। প্রতিযোগিতার অন্য ২ জন বিচারক ছিলেন, কুতুবদিয়া আদালতের সহকারী জজ ফাহমিদা সাত্তার ও সহকারী জজ নাসরিন আফরীন হিমা। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন-কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাম মোহন সেন ও কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নাছির উদ্দিন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির প্যানেল আইনজীবী এডভোকেট ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজী, এডভোকেট আবদুর রহিম, এডভোকেট মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী, কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক মোকতার আহমদ, জসিম উদ্দিন, জামাল উদ্দিন, কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক আবু তৈয়ব, আবদুর রহিম, মানিক চন্দ্র দে, অভিবাবক নুরুল ইসলাম, কবি রুহুল কাদের বাবুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বেশ উপভোগ্যমূলক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানটি সার্বিক ব্যবস্থাপনা করেন-জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের প্রধান সহকারী খোকন মাহমুদ, স্টাফ শফিক সরদার। ইউএসএইড এর প্রোমোটিং পিচ এন্ড জাস্টিস (পিপিজে) এ্যাকটিভিটি’র অর্থায়নে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এবং ইয়ং পাওয়ার ইন স্পেশাল এ্যাকশান (ইসপা) এর সহযোগিতায় এ বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ী ও বিজিতদের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্রেস্ট ও সনদ বিতরণ করা হয়। লিগ্যাল এইডের প্রচারে কক্সবাজারে এই প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে সফল বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •