যমুনা: রাতের আঁধারে আয়োজন করা হয়েছিলো বাল্যবিয়ে। খবর পেয়ে রাতেই বিয়ে বাড়িতে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। তার উপস্থিতি টের পেয়ে বাসর ঘর থেকে দৌঁড়ে পালিয়ে যায় নবদম্পতি ও বিয়ে বাড়ির লোকজন।

ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের মামুতপুর গ্রামে। শনিবার রাত আনুমানিক ৮টার সময় ঐ এলাকায় বাল্যবিয়ে বন্ধে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তমাল হোসেন।

ইউএনও তমাল হোসেন জানান, মামুতপুর গ্রামের মো. তছের সরকারের বাড়িতে তার ছেলে ইনামুল সরকার (২৫) এর সাথে পার্শ্ববর্তী এলাকা দুধগাড়ী গ্রামের আনোয়ার হোসেনের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া পনের বছর বয়সী মেয়ে নুপুর খাতুনের বাল্যবিয়ের খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। বিয়ে বাড়ির লোকজন প্রশাসনের উপস্থিতি বুঝতে পেরে বর-কনেসহ সকলেই দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলেই বিয়ে পরবর্তী আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এবং পরবর্তীতে উভয়পক্ষের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান ইউএনও। বাল্যবিয়ে বন্ধে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্থানীয় মেম্বার হিটলার হোসেন জানান, বর কনেসহ তাদের অভিভাবককে রোববার দুপুরে উপস্থিত করার জন্য ইউএনও নির্দেশ দিয়েছেন। এখনো বর কনেসহ তাদের অভিভাবকরা আত্মগোপনে রয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •