বিদেশ ডেস্ক:

আবারও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর কঠোর সমালোচনা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। শুক্রবার তিনি বলেছেন, ফরাসিদের উচিত ম্যাক্রোঁকে পরিত্যাগ করা। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এখবর জানিয়েছে।

মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ক্লাসে কার্টুন প্রদর্শনের জেরে এক ইসলামপন্থী উগ্রবাদী কর্তৃক একজন ইতিহাস শিক্ষককে হত্যার পর থেকেই উত্তপ্ত হয়ে আছে ফ্রান্স। ওই ঘটনার পর ইসলামিক বিচ্ছিন্নতাবাদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রন। তিনি বলেন, এই বিচ্ছিন্নতাবাদ ফ্রান্সের মুসলমান সম্প্রদায়গুলোতে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে। ফরাসি প্রেসিডেন্টের এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান। তিনি বলেন, মুসলমান ও ইসলাম ধর্মের প্রতি মনোভাবের জন্য ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর মানসিক চিকিৎসা দরকার।

ইস্তানবুলে জুমার নামাজের পর সাংবাদিকদের এরদোয়ান বলেন, ম্যাক্রোঁ হচ্ছেন ফ্রান্সের জন্য বোঝা। ম্যাক্রোঁ ও ফ্রান্স খুবই বিপজ্জনক সময় পার করছে। আমি আশা করছি, যতদ্রুত সম্ভব ফ্রান্স ম্যাক্রোর হাত থেকে মুক্তি পাবে।

এরদোয়ান আরও বলেন, ফরাসীদের উচিত ম্যাক্রোঁকে পরিত্যাগ করা। তা না হলে তারা ইয়েলো ভেস্ট থেকে মুক্তি পাবে না।

২০১৮ সালে ফ্রান্সে ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলন শুরু হয়। এরদোয়ান সেই আন্দোলনের কথাই ইঙ্গিত করেছেন। বিস্তারিত না জানিয়ে তুর্কি প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলন রেড ভেস্ট আন্দোলনে পরিণত হতে পারে।

এরদোয়ানের এমন মন্তব্যের পর ম্যাক্রোঁ সম্মান জানানোর আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এরদোয়ান তুর্কি নাগরিকদের স্বাধীনতা খর্ব করেছেন।

তুরস্ক ও ফ্রান্স উভয়েই পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য। তবে দেশ দুটির মধ্যে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ইস্যুতে পরস্পর বিরোধী অবস্থান রয়েছে। এসব ইস্যুর মধ্যে রয়েছে সিরিয়া, লিবিয়া, পূর্ব ভূমধ্যসাগরের কর্তৃত্ব এবং নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলের বিরোধ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •