শাহেদ মিজান, সিবিএন:

কক্সবাজার শহরের ঝাউতলা আবাসিক এলাকায় একটি পাগলা কুকুর কামড় দিয়েছে অন্তত ১০জনকে। এতে রয়েছেন শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত। কামড়ের শিকারদের কয়েকজনের মারাত্মক জখম হয়েছে। আহতদের একজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়ছে।

আজ বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল ১১ থেকে দেড়টা পর্যন্ত এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ঝাউতলা ৪নং গলির বাসিন্দা রেডক্রিসেন্ট কর্মকর্তা শাহজাহান এই তথ্য জানিয়েছেন।

এই প্রত্যক্ষদর্শী জানান, সকাল ১১টার দিকে ওই পাগলা কুকুরটি ঝাউতলা আবাসিক এলাকায় হানা দেয়। কুকুরটি দৌড়ে দৌড়ে যাকে সামনে পেয়েছে তাকেই কামড় দিয়েছে। তবে কামড়ের শিকার অধিকাংশই শিশু। এছাড়া বৃদ্ধও রয়েছে। সব মিলে ১০ জনের বেশি মানুষকে কামড় দিয়েছে।

কামড়ের শিকারদের মধ্যে  স্থানীয় বাসিন্দা ক্যামেরাপার্সন শিবুর এক নাতি, আরমান নামের এক ব্যক্তির ছেলে, রুবেল নামে একজন, কাঞ্চন নামের এক ব্যক্তির মেয়ে। অন্যান্যদের পরিচয় তাৎক্ষণিক জানা যায়নি। তবে কামড়ের শিকার সবাই ঝাউতলা ৩নং, ৪নং গলি ও হিন্দু কলোনির বাসিন্দা। এদের একজনের মুখে এবং একজনের পেটে মারাত্মকভাবে কামড় দিয়েছে।

তিনি জানান, হামলা শুরু থেকেই কুকুরটি মারার চেষ্টা করেছে স্থানীয়রা। এর মধ্যে আজমীর হোটেলের সামনে লোকজন আঘাত করে কুকুরটিকে কাবু করে। আঘাতে কুকুরটি অজ্ঞান হয়ে যায়। তবে সবাই মনে করেছিলো মারা গেছে। খবর পেয়ে পৌরসভার লোকজন গিয়ে মৃত ভেবে গাড়ি তুলতে গেলে আকস্মিক উঠে পালিয়ে যায় কুকুরটি। অজ্ঞান থেকে উঠেই বেশি মানুষকে কামড় দিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী শাহাজান।

দুপুর আড়াইটা নাগাদ এই পাগলা কুকুরটিকে দ্বিতীয় দফায় আঘাত করেছে স্থানীরা। এতে অজ্ঞান হয়ে পড়েছে। তবে মারা গেছে কিনা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। বলা হচ্ছে মরে গেছে। তবুও ভয়ে মানুষজন ঘরবন্দি হয়ে রয়েছে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •