মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

“মুজিববর্ষে বাংলাদেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবেনা”-মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণা বাস্তবায়নে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন বদ্ধপরিকর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষনা মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মাঝে প্রচন্ড ইচ্ছাশক্তির উদ্রেক ঘটেছে। এ ঘোষনা অপেক্ষাকৃত বেশী বেশী মানবিক কর্মে যুক্ত হতে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত হয়েছে। এটা মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের জন্য একদিকে সুবর্ণ সুযোগ, অন্যদিকে, পরকালের জন্য এক বিশাল অর্জন।

প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষনা মতে, চকরিয়ার হারবাং এ গৃহহীন বিধবা আছিয়া বেগমের জন্য নির্মাণাধীন বাড়ি পরিদর্শন করতে গিয়ে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন এ কথা বলেন। মঙ্গলবার ১ ডিসেম্বর সকালে নির্মাণাধীন বাড়ি পরিদর্শনের সময় অন্যান্যদের সাথে চকরিয়ার ইউএনও সৈয়দ শামসুল তাবরীজ, পিআইও মাসুদুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়নে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন চকরিয়ার হারবাং ইউনিয়নের কোরবানী হাটের মৃত আবদুর রহমান ও জগুনা খাতুনের কন্যা বিধবা আছিয়া খাতুনকে সরকারি খাস জমিতে বাড়ি নির্মাণ করে দিচ্ছে। জেলা প্রশাসক কর্তৃক নির্মাণাধীন বাড়ি পরিদর্শনের পর এ বিষয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন তাঁর অফিসিয়াল ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। নিম্মে স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো।

বিধবা আছিয়া বেগম

“চকরিয়া উপজেলার হারবাং এর আছিয়া বেগম। প্রায় ৭-৮ বছর পূর্বে স্বামীকে হারিয়েছেন। ১২ বছর বয়সের তার একমাত্র কন্যাটিও প্রতিবন্ধী। মানুষের কাছে হাত পেতে কোনরকমে চলে সংসার। বেঁচে থাকার লড়াইটা তার প্রতিদিনের।

আমরা তার বেঁচে থাকার লড়াইয়ে সাথী হব। জেলা প্রশাসন, কক্সবাজার এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে উপজেলা প্রশাসন, চকরিয়ার বাস্তবায়নে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে একটি ঘর পাচ্ছেন। আজ সরেজমিন ঘর নির্মাণ কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিদর্শন করা হয়।

মুজিববর্ষে বাংলাদেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবেনা-মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণা বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসন, কক্সবাজার বদ্ধপরিকর।”

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •