অনলাইন ডেস্ক : দেশের অর্থনীতির চালিকা শক্তি ধরে রেখেছেন বাংলাদেশি প্রবাসীরা। তারা হচ্ছেন এদেশের রেমিটেন্স যোদ্ধা। কিন্তু এসব রেমিটেন্স যোদ্ধাদের উন্নতমানের স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সরবরাহে ‘ফি’ নির্ধারণের চিন্তাভাবনা করেছিল নির্বাচন কমিশন। তবে শেষমেষ সেই চিন্তাভাবনা থেকে সরে এসেছে নির্বাচন কমিশন। এখন সব প্রবাসী ফ্রিতে এনআইডি পাবেন।
জানা গেছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ বাংলাদেশি এখন প্রবাস জীবনযাপন করছেন। দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করছেন তারা। দেশের অর্থনীতিতে প্রবাসীদের অবদান ১৩ থেকে ১৪ শতাংশ। রেমিটেন্স যোদ্ধাদের এনআইডি ফ্রিতে বিতরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আজ রোববার (২৯ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশনের ৭৩তম সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ইসির জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর বলেন, প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা ভোটার নিবন্ধন দিয়ে তাদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হবে না।
এর আগে গত বৃহস্পতিবার জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, প্রবাসী বাংলাদেশিদর জন্য এনআইডি সেবা কার্যক্রম শুরুর পর ইতোমধ্যে চারটি দেশে প্রায় সাড়ে সাতশটি আবেদন পেয়েছে এনআইডি উইং।
নভেম্বরে প্রবাসী বাংলাদেশিদের অনলাইনে ভোটার করার কার্যক্রম হাতে নেওয়ার পর পরই করোনাভাইরাস মহামারী দেখা দেয়। এখন পর্যন্ত মালয়েশিয়া থেকে ৪৮ জন, সৌদি আরব থেকে ৩৯ জন, সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ৫৩০ জন এবং যুক্তরাজ্য থেকে ১২১ জন প্রবাসী বাংলাদেশি অনলাইনে ভোটার হতে আবেদন করেছেন।
দেশে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র বিনা ফিতে বিতরণ করা হচ্ছে। তবে হারানো, সংশোধন বা ডুপ্লিকেট এনআইডি সংগ্রহে ফি নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে।
২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে মালয়েশিয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের এনআইডি সেবা চালু করা হয়। সর্বশেষ এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাজ্যে এ সেবা কাজ উদ্বোধন করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। প্রবাসীরা অনলাইনে ভোটার নিবন্ধনে জন্য services.nidw.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। এ যুগান্তকারী পদক্ষেপ চালুর পর মহামারী শুরু হওয়ায় দূতাবাসের মাধ্যমে বায়োমেট্রিক নেওয়ার কাজ ‘থমকে’ যায়।
ইসি সচিব বলেন, আজ রোববার (২৯ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, প্রবাসী ভোটারদের কাছ থেকে ফি নেয়া হবে না। কারণ বর্তমানে জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার জন্য যে আইন ও বিধি আছে, সেখানে ফি নেয়ার কোনো সুযোগ নেই। কমিশন বিশ্লেষণ করে দেখেছে, যেহেতু নাগরিক সুবিধা হিসেবে এটা দেশের মধ্যে ফ্রি দেয়া হয়, বিদেশেও ফ্রি দেয়া উচিৎ। এই চিন্তা করে কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রবাসীদের কাছ থেকে ভোটার হিসেবে নিবন্ধনের জন্য ফি নেয়া হবে না।
আলোচনা সভায় উপস্থিত কয়েকজন কর্মকর্তা বলেন, প্রবাসীদের মধ্যে যারা এনআইডি কার্ডের জন্য আবেদন করেছেন তাদের পরিচয়পত্র যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে।
– আরটিভি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •