হারুনর রশিদ,মহেশখালী :

পাহাড় সমতল যেখানেই হোক ,অপরাধিরা মাটির গর্তে লুকিয়ে থেকে ও রেহায় পাবেনা, কাজেই তার প্রমাণ। মহেশখালী থানা পুলিশের প্রেস ব্রিফিং কালে বলেছেন সহকারী পুলিশ সুপার মহেশখালী সার্কেল জাহেদুল ইসলাম। মহেশখালীর আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে তিনি স্থানীয়দের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

রবিবার সকাল ১১টার দিকে থানা প্রাঙ্গনে স্থানীয় সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এ প্রেস ব্রিফিং দেয় পুলিশ। সাম্প্রতিক সময়ে মহেশখালী থানার ছোট মহেশখালী হয়ে পাহাড়ী জনপথ শাপলাপুর জনতাবাজার সড়কে চুরি,ছিনতাই বেড়ে গিয়ে মোটরসাইকেল ও টাকা পয়সা লুটের ঘটনা ঘটেছে।

এব্যাপারে কক্সবাজার জেলার পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান,সহকারী পুলিশ সুপার মহেশখালী সার্কেল জাহেদুল ইসলাম,মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই এর নেতৃত্বে, পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত আশিক ইকবাল এর সহযোগীতায় এসআই শাহাদাৎ, এসআই মনিষ সরকার ও সঙ্গীয় ফোর্সসহ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে সড়কে গাড়ী ও মালামাল ছিনতাই সংক্রান্ত থানায় রুজু হওয়া ২টি মামলার এজাহার নামীয় আসামী ১. শফিকুল ইসলাম শফি(৩৬) পিতা- মো:জাকের হোসেন,সে চকরিয়া উপজেলার হারবাং এলাকার বাসিন্দা ২.মিজানুর রহমান(৩৪)পিতা- গিয়াস উদ্দিন,সে জামালগঞ্জ থানার খান্দাগাও ম এ/পি মহেশখালির শাপলাপুর ষাটমারা এলাকায় থাকে।৩.মোঃনাছির(২৮) পিতা-মৃত জাকির হোছাইন, সে উপজেলার মাতারবাড়ী ইউপির লাইল্যাঘোনা গ্রামের বাসিন্দা পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামীদের কে চকরিয়া,সাতকানিয়া ও মহেশখালিতে অভিযান পরিচালনা করে গ্রেপ্তার করা হয়।

আসামী শফিকুল ইসলাম শফির হেফাজত থেকে একটি লাল রং এর মোটর সাইকেল,মিজানের হেফাজত থেকে একটি কালো রং ইয়ামাহা মোটর সাইকেল এবং আসামী নাছির উদ্দিনের কাছ থেকে ২টি স্মার্ট মোবাইল উদ্ধার করা হয়। ছিনতাই হওয়া মালামাল গুলি উদ্ধার পরবর্তী সনাক্ত করেন মামলার বাদীগন।

প্রেস ব্রিফিং কালে উপস্থিত ছিলেন থানার ওসি আব্দুল হাই,পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত আশিক ইকবাল,সেকেন্ড অফিসার এসআই মফিদুলসহ থানার অফিসারবৃন্দ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •