সিবিএন ডেস্ক:
বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো আজ দেশের বাজারে কালারওএস ১১ (অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক) এর অফিশিয়াল ভার্সন উন্মোচনের ঘোষণা দিয়েছে। সম্প্রতি, অপো বৈশ্বিক বাজারে অপো কালারওএস ১১ উন্মোচন করে, যা প্রথম অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক ওএসইএস। প্রতিষ্ঠানটি এখন মাত্র দুই মাসে স্ট্যাবল অফিশিয়াল ভার্সন চালু করতে সক্ষম হচ্ছে।

চলতি মাসে প্রথম ব্যাচ উন্মোচনে অপো’র তিনটি ফোন এ আপডেট পাবে । যার মধ্যে ফাইন্ড এক্স ২ সিরিজ ও রোনো৪এফ ছাড়াও আছে অপো’র ফ্ল্যাগশিপ মডেলগুলো । ইতিমধ্যে অপো রেনো৪ এফ ডিভাইসটিতে অফিশিয়াল আপডেট এসেছে এবং ফাইন্ড এক্স২ সিরিজে এই মাসের শেষে আপডেট আসবে। অফিশিয়াল ভার্সনটি ৩০ টি অপো ডিভাইসে পৌঁছাবে। রেনো এবং এ সিরিজে আগামী ডিসেম্বর মাস জুড়ে ব্যাচ বাই ব্যাচে আপডেট পৌঁছে যাবে।

‘মেক লাইফ ফ্লো’ধারণাভিত্তিক কালারওএস ১১ এ জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড ফিচারগুলো রয়েছে এবং অপো ব্যবহারকারীদের চাহিদাঅনুযায়ী উন্নতমানের ইউআই কাস্টমাইজেশনও দেয়া হয়েছে। কালারওএস ১১ তে দুর্দান্ত লেভেলের ইউআই কাস্টমাইজেশন আনা হয়েছে, যা ব্যবহারকারীদের ইমাজিনেশন ও পারসোনালাইজ এক্সপেরিয়েন্সকে আরো বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা অলওয়েজ-অন-ডিসপ্লে, থিম, কালার, ওয়ালপেপার, ফন্ট, আইকন ও রিংটোন তৈরিতে সাহায্য করবে। তিনটি কালার স্কিম ও বিভিন্ন লেভেলের কনট্রাস্ট সহযোগে কালারওএস ১১ অ্যান্ড্রয়েডের ডার্ক মোডের স্টক বাড়াতে সাহায্য করবে। ইতিমধ্যে, অপো রিল্যাক্স ২.০ ব্যবহারকারীদের নিজস্ব হোয়াইট নয়েজ মিক্স তৈরিতে এবং বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন শহরের সাউন্ডের এক্সটেনসিভ ও ইমার্সিভ কালেকশনও পাওয়া যাবে এখানে।

কুইকার লঞ্চ ও কালারওএস ১১ এর আপডেট এর জন্য গুগলের সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করছে অপো। গুগলের অ্যানড্রয়েড ১১ ঘোষণার পর কালারওএস ১১ উন্মোচন করেছে। কালারওএস ১১ বর্তমানে বাংলাদেশে অ্যানড্রয়েড ১১ ভিত্তিক অফিশিয়াল ভার্সনের প্রথম মোবাইল ওএসইএস।

কালারওএস ১১ এর অফিশিয়াল ভার্সন যেভাবে আপগ্রেড করবেন

অপো এর বাংলাদেশি ব্যবহারকারীরা দুই ভাবে এটি আপডেট করতে পারবেন
ক. সেটিংস> সফটওয়্যার আপডেট> ডিটেক্ট নিউ ভার্সন
খ. আপডেটের পুশ নোটিফিকেশন পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

অপো:
বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো এর ক্রেতাদের শিল্প ও উদ্ভাবনী প্রযুক্তির মিশেলে তৈরি পণ্য সরবরাহের জন্যে একটি নিবেদিত প্রতিষ্ঠান। তারুণ্য, নতুন ট্রেন্ড/প্রবণতা সৃষ্টি আর সৌন্দর্যের প্রতীক একটি ব্র্যান্ড হিসেবে ডিজিটাল জীবনযাত্রার আরো অসাধারন অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে অপো বরাবরই তার গ্রাহকদের জন্যে নিয়ে আসে সর্বোত্তম সেবা দিতে সক্ষম ইন্টারনেট অপটিমাইজড প্রোডাক্ট। এই ব্র্যান্ডের হাত ধরেই সূচনা হয় ‘সেলফি বিউটিফিকেশন’ এর এক নতুন যুগ। স্মার্টফোন জগতে নিজেদের এক ভিন্ন ভাবমূর্তি প্রতিষ্ঠায় ‘অপো’ নিয়ে এসেছে ‘মোটোরাইজড রোটেটিং’ ক্যামেরা, আল্ট্রা এইচডি ফিচার, ৫এক্স ডুয়াল ক্যামেরা জুম প্রযুক্তি। ২০১৬ সালে ‘অপো’র সেলফি-বিশেষজ্ঞ খ্যাত ‘এফ’ সিরিজ বাজারে আসার পরপরই স্মার্টফোন জগতে সেলফি তোলার প্রবণতা সৃষ্টিতে অগ্রগ্রামী ভূমিকা রাখে অপো। ২০১৭ সালে আইডিসি এর র‍্যাংকিং অনুসারে অপো বিশ্বের চতুর্থ সেরা স্মার্টফোণ ব্র্যান্ড হিসেবে নির্বাচিত হয়। বর্তমানে ৪০টি দেশে ২০ কোটির অধিক গ্রাহক আর ৪,০০,০০০ এর অধিক স্টোর আর বিশ্বজুড়ে ৪টি রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের মিশেলে বিশ্বজুড়েই তরুণদেরকে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে সর্বোৎকৃষ্ট অভিজ্ঞতা দিয়ে চলেছে অপো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •