সিবিএন ডেস্ক:
জলবায়ু উদ্বাস্তুদের ঘর দিতে কক্সবাজারে হবে ১১৯টি ভবনকক্সবাজারের খুরুশকুল নির্মিত আরেকটি আশ্রয়ণ প্রকল্প
জলবায়ু উদ্বাস্তু এবং কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণের কারণে ভূমিহীন ৩ হাজার ৮০৮টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হবে। এ জন্য কক্সবাজারের সদর উপজেলার খুরুশকুল মৌজায় ১১৯টি ৫তলা ভবন করে দেবে সরকার। এতে খরচ হবে এক হাজার ৩৩৩ কোটি ৬১ লাখ টাকা। চলতি বছরের জুলাই থেকে ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা এ লক্ষ্যে ‘খুরুশকুল বিশেষ আশ্রয়ণ’ নামের একটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উদ্যোগে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সেনাসদরের ইঞ্জিনিয়ার ইন চিফের শাখা।

বিজ্ঞাপন

জলবায়ু উদ্বাস্তু এবং কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণের কারণে ভূমিহীন ৩ হাজার ৮০৮টি পরিবারের পুনর্বাসনসহ জীবিকা নির্বাহের মাধ্যমে জাতীয়ভাবে দারিদ্র্যের হার কমানো প্রকল্পটির উদ্দেশ্য।

প্রকল্পের প্রধান কার্যক্রমগুলো হলো- ১১৯টি ৫ তলা ভবন নির্মাণ, একটি মসজিদ ও একটি মন্দির নির্মাণ, ২২ দশমিক ৬০ কিলোমিটার অভ্যন্তরীণ ও সংযোগ রাস্তা নির্মাণ, ৩৮ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ, ২৮টি সেন্ট্রিফিউগাল পাম্প স্থাপন, ৮ কিলোমিটার পানির লাইন ও ১৪টি ওভারগ্রাউন্ড ওয়াটার রিজার্ভার স্থাপন, ৪টি সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ, রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং, পুকুর, জেটি নির্মাণ ও সাব-স্টেশন এবং সোলার প্যানেল স্থাপন করা হবে।

এ বিষয়ে পরিকল্পনা কমিশনের মত হলো, জলবায়ু উদ্বাস্তু ও ভূমিহীন জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসনসহ জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের মাধ্যমে জাতীয় দারিদ্র্যের হার কমাতে ‘খুরুশকুল বিশেষ আশ্রয়ণ’ শীর্ষক প্রকল্পটি সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। ফলে প্রকল্পটি অনুমোদন করা যেতে পারে।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •