ক্রীড়া ডেস্ক:

গত বছরের ১২ অক্টোবর, ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ফাইনাল ম্যাচ। গায়ানা অ্যামজন ওয়ারিয়র্স ও বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের মধ্যকার ম্যাচটিতে ২৭ রানের জয় শিরোপা জিতে নেয় বার্বাডোজ। স্বীকৃত ক্রিকেটে এটিই ছিল বাংলাদেশ দলের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের সর্বশেষ ম্যাচ। যেখানে শিরোপা জয়ের আনন্দে ভেসেছিলেন দেশের ক্রিকেটের এই মহাতারকা।

সেদিন ব্যাট হাতে ১৫ বলে ১৫ রান করার পর, বল হাতে ২ ওভারে ১৮ রান খরচ করেন সাকিব। এরপর কেটে গেছে প্রায় সাড়ে ১৩ মাস। দিনের হিসেবে ৪০৯ দিন, খেলা হয়েছে অসংখ্য আন্তর্জাতিক ও স্বীকৃত ঘরোয়া ক্রিকেট ম্যাচ। কিন্তু একবারের জন্যও মাঠে নামতে পারেননি সাকিব আল হাসান। কেননা ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব গোপন রাখার দায়ে এক বছর নিষিদ্ধ ছিলেন তিনি।

যে কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৪টিসহ সবমিলিয়ে অসংখ্য ম্যাচ খেলতে পারেননি সাকিব। চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞামুক্ত হয়েছেন তিনি। তবে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে মাঠে ফিরতে অপেক্ষা করতে হলো ২৬ দিন। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের আসরে উদ্বোধনী দিনেই মাঠে নামার সুযোগ পেলেন সাকিব। মাঠ মাতাবেন জেমকন খুলনার হয়ে।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটিতে ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে টস জিতে আগে ফিল্ডিং নিয়েছে সাকিবের জেমকন খুলনা। ফলে আগে বোলিং করতে নামা হবে সাকিবের। তার ব্যাটিং দেখতে দ্বিতীয় ইনিংস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ভক্ত-সমর্থকদের।

ফরচুন বরিশাল একাদশঃ তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), মেহেদি হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, কামরুল ইসলাম রাব্বি, সুমন খান, তৌহিদ হৃদয়, ইরফান শুক্কুর, পারভেজ হোসেন, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন।

জেমকন খুলনা একাদশঃ সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, হাসান মাহমুদ, আলআমিন হোসেন, জহুরুল হক অমি, এনামুল হক বিজয়, শামীম পাটোয়ারি, আরিফুল হক, শফিউল ইসলাম ও শহীদুল ইসলাম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •