cbn  

এ কে এম ইকবাল ফারুক, চকরিয়া:
চকরিয়ায় মাস্ক না পরায় ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলাফেরা না করায় ১৩জন ব্যক্তিকে অর্থদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৩ টি মামলার বিপরীতে এক হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা আদায় করার পাশাপাশি সচেতনতা সৃষ্ঠির লক্ষ্যে মাস্ক বিতরণ ও সকলকে মাক্স পরার জন্য সতর্ক করা হয়।

রবিবার (২২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত চকরিয়া পৌর সদরে এ অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. তানভীর হোসেন। অভিযান চলাকালে চিরিঙ্গা বক্স রোডে রাস্তার উপর অবৈধভাবে গাড়ি পার্কিং করে যানজট সৃষ্টি করায় একটি ট্রাক এবং একটি কাভার্ডভ্যান জব্দ করা হয়৷

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. তানভীর হোসেন বলেন, আমরা সকলেই জানি শীতে করোনার তীব্রতা বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। যে কারনে এ সময়টাকে করোনার সেকেন্ড ওয়েব বলা হচ্ছে৷ বিগত কয়েকদিনে সারা দেশে করোনার আক্রান্তের সংখ্যা আবারো বাড়তে শুরু করেছে ৷ ফলে চকরিয়াতে করোনা মহামারী রোধে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে রবিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত চকরিয়া পৌর সদরে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় মাস্ক না পড়ায় ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলাফেরা না করায় ১৩জন ব্যক্তিকে এক হাজার ৯০০ টাকা অর্থদন্ড প্রদানের পাশাপাশি তাদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্ঠির লক্ষ্যে মাক্স বিতরণ ও সকলকে মাক্স পরার জন্য সতর্ক করা হয় করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিট্রেট মো. তানভীর হোসেন আরও বলেন, সচেতনতাই পারে আমাদেরকে এ মহামারী থেকে রক্ষা করতে৷ এখন থেকে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালতের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। আগামীতে মাস্ক না পড়ে ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলাফেরা না করলে শাস্তি এবং জরিমানা আরও কঠোরতর হবে বলেও জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •