মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ফাঁসিয়াখালী কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা এ.এইচ.এম বদিউল আলম ও তাঁর নিকটাত্মীয় মোহাম্মদ সেলিম জামিন লাভ করেছেন। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল ফৌজদারী মিচ মামলা ৫৮০৬/২০২০ মূলে বুধবার ১৮ নভেম্বর তাদের জামিন প্রদান করেন।

পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে গত ২৭ নভেম্বর একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর জিআর ৫০/২০২০ ইংরেজি (পেকুয়া), যার পেকুয়া থানা মামলা নম্বর ৭/২০২০ ইংরেজি। ঘটনার দিন ২৪ সেপ্টেম্বর বারবাকিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা এ.এইচ.এম বদিউল আলম বাদী আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল ইসলামকে রোজা না রাখার কারণে মারধর করে বলে অভিযোগ আনে। মারধরের সময় সময় মাওলানা এ.এইচ.এম বদিউল আলমের নিকটাত্মীয় মোহাম্মদ সেলিম ও আমান উল্লাহ চেয়ারম্যানকে সহায়তা করেন বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন। পরে গত ৮ সেপ্টেম্বর বারবাকিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা এ.এইচ.এম বদিউল আলম ও তাঁর নিকটাত্মীয় মোহাম্মদ সেলিম এই মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৪ সপ্তাহের আগাম জামিন লাভ করেন। হাইকোর্টের আগাম জামিনের মেয়াদ শেষে গত ৩ নভেম্বর চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজিব কুমার দেব এর আদালতে মাওলানা এ.এইচ.এম বদিউল আলম ও মোহাম্মদ সেলিম আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে আসামীদ্বয়কে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে জামিন চেয়ে কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ৫৮০৬/২০২০ নম্বর ফৌজদারী মিচ মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল আাসমী মাওলানা এ.এইচ.এম বদিউল আলম ও মোহাম্মদ সেলিমকে শুনানী শেষে জামিন প্রদান করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •