সিবিএন ডেস্ক:
বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার সবচেয়ে কম বলে দাবি করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

দেশে করোনা সংক্রমণ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জনঘনত্বে বিশ্বে বাংলাদেশের হার এত বেশি- তারপরও আমাদের দেশে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ হার সবচেয়ে কম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এটা সম্ভব হয়েছে। মহামান্য রাষ্ট্রপতি এ অর্জনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশনে আনা সাধারণ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় তিনি এ দাবি করেন।

দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনায় আজ বিপর্যস্ত সারাবিশ্ব। আমাদের দেশে করোনা সংক্রমণ চলছে। তাই সকলকে বলব- বাসা থেকে বের হওয়ার আগে অবশ্যই মাস্ক পরবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন।

বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ছয় হাজার ১৪০ জনে। নমুনা পরীক্ষায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৮৪৫ জন। এ নিয়ে মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জনে।

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১১৫টি ল্যাবরেটরিতে ১৬ হাজার ৯৬৮টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৭ হাজার ১১২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা এক হাজার ৭৩৭ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা তিন লাখ ৪৪ হাজার ৮৬৮ জন।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৭৮ শতাংশ এবং এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ০৭ শতাংশ। রোগী শনাক্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৮০ দশমিক ৭৩ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৪ শতাংশ।

এ পর্যন্ত করোনায় মোট মৃতের মধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ৭২৮ জন (৭৭ শতাংশ) ও নারী এক হাজার ৪১২ জন (২৩ শতাংশ)। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ১৩ জনের মধ্যে পঞ্চাশোর্ধ্ব ৪ জন এবং ষাটোর্ধ্ব ৯ জন।

বিভাগ অনুযায়ী, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ১৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৮ জন, চট্টগ্রামে ১, রাজশাহীতে ১, সিলেটে ১ ও রংপুর বিভাগে ২ জন রয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •