সিবিএন ডেস্ক:
রাজধানীর আদাবরের মাইন্ড এইড হাসপাতালের অনুমোদন ছিল না। সেক্ষেত্রে হাসপাতালটির সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঢাকা জেলার সিভিল সার্জন অফিসার ডা. মইনুল আহসান।

মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) দুপুরে হাসপাতালটি পরিদর্শন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ডা. মইনুল আহসান বলেন, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মাইন্ড এইড হাসপাতাল চালানোর জন্য অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। আমরা তখন পরীক্ষা করে দেখেছি হাসপাতালটি চালানোর মতো সুবিধা ও জনবল কিছুই ছিল না। সেজন্য মার্চ মাসে তাদের আবেদন আমরা স্থগিত করি।

তিনি আরও বলেন, স্থগিতাদেশের পর তারা যদি কোনো চিকিৎসা কার্যক্রম চালিয়ে থাকে তা সম্পূর্ণ অবৈধ। তারা একটি মানসিক নিরাময় কেন্দ্র ও পুর্নবাসন কেন্দ্র হিসেবে চালাচ্ছিল। এসব প্রতিষ্ঠান চালাতে হলে সবকিছু ক্লিনিক্যাল ফ্যাসিলিটিজ ও হাসপাতালের ব্যবস্থা রাখতে হয়, যেন জরুরি মুহূর্তে চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিন্তু তাদের সে অবস্থা ছিল না।

এ সময় হাসপাতাল সিলগালা করা হবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তাদের কোনো অনুমতি ছিল না, তাহলে আমরা কিভাবে সিলগালা করবো।

ঢাকা জেলার সিভিল সার্জন বলেন, মাইন্ড এইড হাসপাতাল আমাদের কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেয়নি। এ কারণেই এটা বন্ধ করার মতো অবস্থায় নেই। এ ঘটনা শুরু থেকে তদন্ত করে হাসপাতালের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ যে ব্যবস্থা নেওয়া যায়, তাদের বিরুদ্ধে সেটা আমরা করবো।

এর আগে তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. হারুন অর রশিদ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এএসপি আনিসকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হাসপাতাল পরিচালনার জন্য এখানে কোনো চিকিৎসক নেই। হাসপাতালের চিকিৎসাধীন রোগীরা চলে গেলে হাসপাতালটি আমরা বন্ধ করে দেবো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •