বার্তা পরিবেশক :

শহরে হিন্দু সম্পদ্রায়ের একমাত্র শ্মশান কক্সবাজার কেন্দ্রীয় মহাশ্মশানে ‘শিব-কালী মন্দির’ নির্মানের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই মন্দিরটি হবে দৃষ্টিনন্দন ও পর্যটকদের দর্শনীয় একটি তীর্থ স্থান। একটি পূর্নাঙ্গ ও পরিকল্পিত মন্দির হবে। এই মন্দির নির্মানে বাজেটের অংক অনেক বড়। কক্সবাজারের একমাত্র মহাশ্মশানে মন্দির নির্মানে অনেকে স্ব ইচ্ছায় এগিয়ে এসেছেন। প্রথম যে ব্যক্তিটি স্ব-ইচ্ছায় এগিয়ে এসেছেন তিনি পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সাংবাদিক নজিবুল ইসলাম। ৯ নভেম্বর কক্সবাজার কেন্দ্রীয় মহাশ্মশানে ‘শিব-কালী’ মন্দির নির্মানে নজিবুল ইসলাম তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অনুদানের চেক প্রদান করেন কেন্দ্রীয় মহাশ্মশান পরিচালনা কমিটির কাছে । এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সহ সভাপতি রতন দাশ, অধ্যাপক অজিত দাশ, উজ্জ্বল কর, পৌর পূজা কমিটির সভাপতি বেন্টু দাশ, কেন্দ্রীয় মহাশ্মশান পরিচালনা কমিটির কার্যকরি সভাপতি সাংবাদিক দীপক শর্মা দীপু, জেলা পূজা কমিটির কর্মকতা স্বপন দাশ, মহাশ্মশান উন্নয়ন কমিটির আহবায়ক কাঞ্চন দাশ, যুগ্ন আহবায়ক দুলাল দাশ ও কৃষ্ণ পাল। কর্মকর্তারা জানান, নজিবুল ইসলাম হিন্দু সম্প্রদায়ের যে কোন আপদে বিপদে এগিয়ে আসেন এবং পূজা, মন্দির, শ্মশান উন্নয়নে সহায়তা করেন। কেন্দ্রীয় মহাশ্মশানে মন্দির নির্মানে অনুদান প্রদান করায় নজিবুল ইসলামের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতবৃন্দ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •