শাহেদ মিজান, সিবিএন:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে নবগঠিত কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ।

রোববার সকাল ১১টায় শহীদ দৌলত ময়দানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে দিনব্যাপী কর্মসূচী শুরু করা হয়। কর্মসূচীতে সভাপতি সাদ্দাম হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনানসহ নবগঠিত জেলা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

নেতৃবৃন্দ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও বধ্যভূমিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। কমিটি নবযাত্রা হিসেবে কমিটি নেতৃবৃন্দ দেশ গড়তে অবদান রাখা এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে শপথ গ্রহণ করেন। এসব কর্মসূচীতে অংশ নেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, সদর-রামু আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, মহেশখালী কুতুবদিয়া আসনের সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিকসহ বিভিন্ন স্তরের নেতারা।

কর্মসূচীর অংশ হিসেবে প্রয়াত সাবেক জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মুুক্তিযুদ্ধের সংগঠক একে এম মোজাম্মেল হক, সাবেক সাংসদ ও রাষ্ট্রদূত ওসমান সরওয়ার আলম চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক এড. আহমদ হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চৌধুরীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে তাদের কবর জিয়ারত করেন।

কর্মসূচী শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে নবগঠিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান বলেন, বাঙ্গালী জাতির প্রাণের স্পন্দন , এদেশে গণমানুষের অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হাতে সংগঠন ছাত্রলীগের কক্সবাজার জেলা মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা দায়িত্ব দেয়া হয়েছে আমাদের। ছাত্রলীগের অভিভাবক এবং কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যোগ্য মনে করেছে বলেই আমাদেরকে এরই গুরু দায়িত্ব দিয়েছেন। আমরা এই দায়িত্ব পালনে কোনো ধরণের অবহেলা করবো না। আমরা অতীতের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগকে আরো সুসংগঠিত করতে প্রাণপণ চেষ্টা করবো। জেলা থেকে তৃনমূল পর্যন্ত সাংগঠনিক কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে আমরা সবাই এক যোগে কাজ করবো।

সভাপতি এস.এম সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘মাননীয় প্রধামন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য্য আমাদেরকে কক্সবাজার মতো একটি জেলা দায়িত্ব দিয়েছেন। এই দায়িত্ব একটি পবিত্র আমানত গ্রহণ করেছি। আমরা জেলা ৭১ টি ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের সাথে আমরা কার্যক্রম শুরু করবো। টাকা দিয়ে পদ দেয়ারতো প্রশ্নই আসে না; শুধুমাত্র পারিবারিক ব্যাকগ্রাউন্ড দিয়েও পদ দেয়া হবে না। কারো রেফারেন্স দিয়েও পদ পাওয়া যাবে না। শুধুমাত্র পরিচ্ছন্ন নিয়মিত ছাত্র ও মাঠে কাজ করা ত্যাগী কর্মীদের নিয়ে নিয়ে আমরা পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করবো।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, ‘সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন হিসেবে সমাজের প্রতি আমাদের অনেক দায়বদ্ধতা রয়েছে। সমাজের গণমানুষের জন্য ছাত্রলীগ সব সময় কাজ করে আসছে। করোনাকালে আমরা অসহায় মানুষের জন্য অনেক কিছু করেছি, ত্রাণের ব্যবস্থা করেছি, ধান কেটে দিয়েছি, বাজারমূল্যের অতিরিক্ত দামের সবজি কিনেছি তা বিতরণ করেছি। আগামীতেও গণমানুষের আমরা কার্যক্রম অব্যাহত রাখবো।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •