আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
মার্কিন নির্বাচনের ভোট গণনা চলছে। কিন্তু জয় নিশ্চিত হবে এমনটা ভাবতে পারছেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প।

আর সে কারণে একেকবার তিনি একেক ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন, অভিযোগ তুলছেন। আবার কখনো ভোট গণনা বন্ধ করার দাবিও তুলছেন।
ভোটের আগে থেকেই তিনি বিভিন্ন ধরনের উল্টাপাল্টা বকছেন।

আর ভোটের পর থেকে যা বলছেন, মার্কিন গণমাধ্যম সেগুলোকে মিথ্যা, ভিত্তিহীন বলে উল্লেখ করছে।

সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হলো, ট্রাম্প যা বলছেন তা সমর্থন করে তার দলের বা হোয়াইট হাউসের কেউ বক্তব্য দিচ্ছেন না। এসব ব্যপারে পরিবারের সদস্য ছাড়া তার সঙ্গে আর কেউ নেই।

এর কারণ হচ্ছে, ট্রাম্প নির্বাচনে কারচুপির যে অভিযোগ তুলেছেন, তার পেছনে কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি।

নিয়মের তোয়াক্কা না করে বলেছেন, ভোটের দিন ছাড়া পরে আসা ভোট গণনা করা যাবে না।

ভোট গণনা চলতে থাকার এক পর্যায়ে তিনি নিজেকে বিজয়ী ঘোষণাও করেন।

এরপর ভোট গণনা বন্ধের দাবি তোলেন।

ভোটের দিন থেকেই তিনি উল্টাপাল্টা টুইট করে যাচ্ছেন। তার টুইটগুলোও মনগড়া আর উসকামিূলক। সে কারণে গত তিন দিনে তার কমপক্ষে ৬টি টুইটে সতর্কতার লেবেল লাগিয়ে ঢেকে দিয়েছে টুইটার।

এছাড়া নির্বাচন নিয়ে মিথ্যা বলার কারণে কয়েকটি মর্কিন টেলিভিশন তার বক্তব্যের লাইভ সম্প্রচারও বন্ধ করে দিয়েছে।

সবশেষ খবর হলো, মিশিগান ও জর্জিয়ায় ট্রাম্প শিবিরের করা মামলা খারিজ করে দিয়েছেন স্থানীয় আদালতের বিচারকেরা।

ট্রাম্প নিজের এসব কর্মকাণ্ডে কারো সমর্থনই পাচ্ছেন না। উল্টো তিনি বিশ্বজুড়ে সমালোচিতই হচ্ছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •