প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর চার জাতীয় নেতাকে কারাগারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট সপরিবারে হত্যার পর জাতির ইতিহাসে ৩ নভেম্বর দ্বিতীয় কলঙ্কজনক অধ্যায়। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, এএইচএম কামারুজ্জামান এবং ক্যাপ্টেন মনসুর আলীকে এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।
এদিনে রামু উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন মুক্তিযুদ্ধের চার জাতীয় নেতাকে যথাযথ শ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে ইতিহাসের বর্বরোচিত এই কালো অধ্যায়টিকে স্মরণে আলোচনা সভার আযোজন করে।
মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় রামু উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা মাস্টার ফরিদ আহমদ। বক্তব্য রাখেন রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, জেলা তাঁতীলীগের সহ সভাপতি আনচারুল হক ভুট্টো। ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আজিজুল হক আজিজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা মো. আলম, রামু উপজেলা তাঁতীলীগ সভাপতি নুরুল আলম জিকু, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবু বক্কর ছিদ্দিক, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হক বাবু, রামু উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ নোমান, বঙ্গবন্ধু প্রজন্মলীগ সভাপতি কামরুল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মো. জাহেদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আব্দুশ শুক্কুর, মো. নাছির উদ্দিন, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. রুবেল, রাজারকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, বঙ্গবন্ধু ছাত্র ফেডারেশন সভাপতি মাকসুদুর রহমান সাগর, সাধারণ সম্পাদক মো. রিয়াদ, রামু ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মো. জাহেদ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •