হামিদুল হক, ঈদগড়:
জেলার ঈদগড় বাজারে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে শাকসবজি। ৫০ টাকার কমে সবজি মিলছে না। দেখভালের কেউ নেই বাজারের। তাতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, সরকার নির্ধারিত প্রতি কেজি আলুর মূল্য ৩৫ টাকা হলেও খুচরা বিক্রি হচ্ছে ৪৫/৫০ টাকা। প্রতিকেজি করলা ৬০, বেগুন ৬০, পেঁয়াজ ৯০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১৬০-২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য সবজির বাজারেও একই অবস্থা।

ঈদগড় বাজারের সবজি ব্যবসায়ী মোঃ আলী জানান, এ মৌসুমে সবজি চাষীরা বৃষ্টির কারণে আশানুরূপ সবজি ফলাতে পারে নি। তাই বেশী দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

ব্যবসায়ীদের মতে, দীর্ঘদিন বৃষ্টি থাকায় সবজির বীজ বপন করার পরও নষ্ট হয়ে গেছে। সবজির ফলন কম হওয়ায় বাজারে কম মিলছে। তাই বাজারে সবজির দাম চড়া।

চরপাড়া গ্রামের ভ্যান চালক নূরুল আবছার বলেন, সারাদিন ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা কামাই। তারমধ্যে সবজি কিনতেই খরচ হয় ২০০/২৫০ টাকা। সরকারিভাবে যদি খোলা বাজারে আলুসহ অন্যান্য ভোগ্যপণ্য বিক্রয় করা হতো, তাহলে আমরা উপকৃত হতাম।

মাঠ পর্যায়ে প্রশাসনের নজরদারির আভাবে পাইকারি এবং খুচরা পর্যায়ে বিক্রেতা সরকার নির্ধারিত দর অমান্য করে কিছুটা নিজের (চড়া) দামে বিক্রেতারা সবজি বিক্রি করছে। ফলে খেটে খাওয়া সাধারণ শ্রমজীবী মানুষরা বাধ্য হয়ে ওই দামে সবজি কিনতে বাধ্য হচ্ছেন বলেন অনেকে মনে করছেন।

বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রণে হাট-বাজারে অভিযান পরিচালনা দরকার বলে মনে করছে এলাকার খেটে খাওয়া মানুষগুলো ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •