কুতুবদিয়া সংবাদদাতা :

কুতুবদিয়ায় কেনা জায়গায় ঘর নির্মাণ করতে গেলে প্রতিপক্ষের বাধার জেরে সংঘর্ষে আহত হয়েছে ৮ নারী-পুরুষ। বুধবার (২৮ অক্টোবর) রাত ৯টার দিকে উত্তর ধুরুং মনছুর আলী হাজির পাড়ায় মারামারির ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওই গ্রামের জাফর আলম তার ভাইদের কাছ থেকে পৈত্রিক সম্পত্তি কিনে নিয়ে দেড় বছর আগে সেমিপাকা ঘর নিমাণ করতে গেলে অন্য ভাইয়েরা ওয়ারিশ পাবে এমন অজুহাতে ঘর নির্মাণের মাঝপথে বাধা দেয়। সে ভিটা থেকে উচ্ছেদেরও চেষ্টা করা হয় তাদের।

দীর্ঘদিন পর পরিত্যক্তঘরটি আবার নির্মাণ করতে গেলে বুধবার রাতে বদি আলমের নেতৃত্বে কয়েকজন হামলা চালায়। এতে ৮ নারী পুরুষ মারাত্মক আহত হন। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। আহতরা হলেন, মনছুর হাজীর পাড়া আব্দুল মাবুদের পুত্র নেজাম উদ্দিন(৩৫), জাফর আলমের মাদ্রাসা পড়ুয়া মেয়ে সখিনা (১৫) তার স্ত্রী ছেনুয়ারা (৫৫), দুই পুত্র মো: ছোটন(২২), মো: ইসমাইল (১৮),আব্দুল খালেকের স্ত্রী রহিমা বেগম (৪০),নুরুল আলমের স্ত্রী পারভীন আক্তার (৩৫) মোজার মিয়ার পুত্র নুরুল আলম(৩৬)। আহতদের মধ্যে নেজাম উদ্দিন,ছেনুয়ারা,রহিমা বেগম ও পারভীন আক্তারের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করেন।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: জালাল উদ্দিন বলেন, উত্তর ধুরুং পারিবারিক বিরোধের জেরে সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। একাধিক ব্যক্তি মারাত্বক জখমও হয়েছে। এ ঘটনায় বদি আলমের পুত্র আব্দুল খালেক (৩৫) ও মৃত সিরাজুল ইসলামের পুত্র মো: হোসেন(৩৩) কে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার জাফর আলম বাদী হয়ে ৯জনকে আসামী করে মামলা করেছেন বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •