প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

দৃষ্টিনন্দন কক্সবাজার প্রধান সড়ক সম্প্রসারণে ব্যক্তি মালিকানাধীন কোন জমি নেয়া হবে না। তবে সড়ক ও জনপদ বিভাগ বিএস সীট মতে সড়কের যে জমি কউকের নিকট হস্তান্তর করেছে, সেখানে যদি দখলদার থাকে তাদের উচ্ছেদ করা হবে।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কউক) চেয়ারম্যান লেঃ কর্ণেল (অবঃ) ফোরকান আহমেদ এমন মন্তব্য করেছেন। একই সাথে তিনি শহরবাসীকে কোন প্রপাগান্ডায় বিভ্রান্ত না হওয়ারও অনুরোধ জানিয়েছেন।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে কক্সবাজার শহরের পূর্ব বাজারঘাটা এলাকার ভবন ও ভূমি মালিকদের সাথে এক মতবিনিময়কালে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

জনাব ফোরকান আহমেদ আরো বলেন, কারো খতিয়ানী বা ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি প্রধান সড়কের জন্য অধিগ্রহণ করবে না কউক। ইতিপূর্বে সড়ক বিভাগের অধিগ্রহণকৃত জমিতেই প্রধান সড়ক নির্মিত হবে।

তিনি বলেন, কক্সবাজার শহরের হাশেমিয়া মাদ্রাসা থেকে বাস টার্মিনাল পর্যন্ত সড়কটি ১০০ ফুট প্রশস্ত হবে। এছাড়া হাশেমিয়া মাদ্রাসা থেকে হলিডে মোড় পর্যন্ত ইতিপূর্বে সড়ক বিভাগের অধিগ্রহণকৃত জমিতে একটি সুন্দর ও দৃষ্টিনন্দন দু’লাইনের সড়ক নির্মাণ করা হবে। তবে এই সড়কের অংশটি কত ফুট প্রশস্ত হবে তা আলোচনার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

পূর্ব বাজারঘাটার ভূমি ও ভবন মালিকরা কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করতে গেলে, উক্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

আলোচনায় কউক চেয়ারম্যান আরো বলেন, প্রশস্তকরণ কাজের চলমান প্রকল্পটিতে এখন রাস্তার দুইপাশের জমির সার্ভে চলছে। কউকের সার্ভে চলাকালে কারও কোন সমস্যা থাকলে তা নিয়ে আমার সাথে আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করা যাবে।

কউক চেয়ারম্যান ফোরকান আহমেদ আরো বলেন, কক্সবাজার প্রধান সড়কটি প্রশস্তকরণ কাজ নিয়ে কেউ কেউ প্রপাগান্ডা ছড়াচ্ছে, যা কারো জন্যই ভালো নয়।

এই সব প্রপাগান্ডায় বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য এবং সড়ক পার্শ্বস্থ ভবন ও ভূমি মালিকদের কউকের উপর আস্থা রাখার জন্য তিনি অনুরোধ জানান।

সৌজন্যে সাক্ষাতকালে পূর্ব বাজারঘাটার ভবন ও ভূমি মালিকাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার প্রেসক্লাব সভাপতি মাহবুবর রহমান, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের সভাপতি আবু মোর্শেদ চৌধুরী, দৈনিক দৈনন্দিনের প্রধান সম্পাদক মোঃ রাশেদুল ইসলাম, মার্কেট ওনার্স এসোসিয়েশনের সদস্য ইয়াছির পারভেজ চৌধুরী, জিয়াউল হুদা জিয়া, আলহাজ্ব মোঃ আবদুল্লাহ, মাষ্টার দয়াল পাল, ডাঃ এনামুল কবির খোকন, আবদুস শুক্কুর প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •