মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যা মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশীট-সিএস) খুব শীঘ্রই আদালতে দাখিল করা হবে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

অক্টোবরের মধ্যে আদালতে চার্জশীট দাখিল করা যাবে কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে সিনিয়র এএসপি মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম বলেন- “চেষ্টা করছি”। তিনি বলেন, চার্জশীট দাখিলের জন্য সবকিছু ঘুছিয়ে এনেছি।

মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যা মামলার চার্জশীট সুনির্দিষ্টভাবে কখন দেওয়া হবে-এমন প্রশ্নের উত্তরে র‍্যাব এর প্রধান কার্যালয়ের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানান-“সুনির্দিষ্ট সময় বলা খুব কঠিন। তবে এ বিষয়ে আমরা কাজ করছি, আদালতে যথাসময়ে চার্জশীট দাখিল করা হবে ইনশাআল্লাহ।” চার্জশীটে মোট আসামী ক’জন থাকবে, এই প্রশ্নের জবাবে কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, এ সংখ্যাটা এখনো চুড়ান্ত হয়নি।

গত ৩১ জুলাই রাত্রে টেকনাফের বাহারছরা এপিবিএন চেক পোস্টে পুলিশের গুলিতে খুন হয় মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খান। পরে গত ৫ আগস্ট সিনহা’র বড়বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস (৪২) বাদী হয়ে চাকুরী থেকে বরখাস্ত হওয়া লিয়াকত আলী, সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, নন্দলাল রক্ষিত, সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া সহ ৯জনকে আসামী করে টেকনাফ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই হত্যা মামলাটি দায়ের করেন। যার টেকনাফ থানার মামলা নম্বর : ৯/২০২০, সিআর মামলা নম্বর : ৯৮/২০২০ ইংরেজি (টেকনাফ)। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য র‍্যাব-১৫ কে দায়িত্ব দিয়েছিলেন। এই মামলার ফৌজদারী দরখাস্তে বাদী শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস ৯ জনকে আসামী করলেও তারমধ্যে ২ জন আসামী সনাক্ত করা যায়নি বলে জানান, কর্নেল আশিক বিল্লাহ। অবশিষ্ট ৭ জন এজাহার ভুক্ত আসামী আদালতে ৬ আগস্ট আদালতে আত্মসমর্পণ করে। এছাড়া এজহারবর্হিভূত কক্সবাজারস্থ ১৬-এপিবিএন এর সাব ইন্সপেক্টর শাহজাহান, কনস্টেবল মোঃ রাজিব ও কনস্টেবল মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, সিনহার হত্যার পর পরদিন পুলিশের দায়ের করা মামলার ৩ জন সাক্ষী এবং টেকনাফ থানার সাবেক কনস্টেবল রুবেল শর্মাকে এ মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়। আটক থাকা ১৪ জন আসামীর মধ্যে প্রদীপ কুমার দাশ ও রুবেল শর্মা ব্যতীত বাকী ১২জন আসামী ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। প্রত্যেক আসামীকে আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে রিমান্ডেও নেওয়া হয়েছিলো।

এদিকে, মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যা মামলা বাতিল চেয়ে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে দায়ের করা রিভিশন আবেদনটি আদৌ গ্রহন করা হবে কিনা-সে বিষয়ে মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর শুনানী করা হবে। রিভিশন আবেদনটি সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যা মামলার প্রধান আসামী লিয়াকত আলী’র পক্ষে কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির একজন আইনজীবী গত ৪ অক্টোবর আদালতে দায়ের করেছিলেন।

রিভিশন আবেদনটি রাষ্ট্র, সিনহা মোঃ রাশেদ হত্যা মামলার বাদী শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস এর আইনজীবী এবং লিয়াকত আলী’র আইনজীবীর ত্রিপক্ষীয় শুনানী বলে জানিয়েছেন-কক্সাবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এডভোকেট ফরিদুল আলম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •