মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু :
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে কৃষকের উদ্ধার করা ২টি স্থল মাইন ধ্বংস করেছে সেনাবাহিনীর বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ দল। সোমবার (১৯ অক্টোবর) নাইক্ষ্যংছড়িতে এসব মাইন ধ্বংস করা হয়।

জানা গেছে, বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ৪৫-৪৬ নং সীমান্ত পিলারের মাঝামাঝি বাংলাদেশ অভ্যন্তরের জামছড়ি এলাকার বাসিন্দা আবুল কালাম গত ২৯ জুলাই ২টি স্থল মাইন (ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) সন্ধান পেয়েছিল। পরে সে বিজিবিকে খবর দিলে বিজিবি মাইন দুটি নিরাপদ স্থানে সরিয়ে রাখেন। সোমবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবির সহায়তায় সেনাবাহিনীর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের প্রকৌশল বিভাগের সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মোঃ আশরাফ আলীর নেতৃত্বে ৮সদস্যের বিশেষজ্ঞ দল মাইন দুইটি তথ্য উপাত্ত পর্যবেক্ষণ করেন বিস্ফোরণ ঘটান। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নাইক্ষ্যংছড়ি বিজিবির জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল শাহ আবদুল আজিজ আহমেদ। দোছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হাবিবউল্লাহ জানান, ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়ার পর থেকে নাইক্ষ্যংছড়ির দোছড়ি থেকে ঘুমধুম সীমান্ত এলাকার বিভিন্ন স্থানে বেআইনীভাবে মাইন পুঁতে মিয়ানমার বাহিনী। এসব মাইন দ্বারা অনেক স্থানীয় বাসিন্দা ও রোহিঙ্গা নাগরিক হতাহত হয়েছে। এছাড়া মিয়ানমারের বিদ্রোহী একটি গ্রুপের বিরুদ্ধে অভিযানের অংশ হিসেবে সীমান্তে মাইন স্থাপন করে আসছে মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষীরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •