আবু সায়েম :
কক্সবাজার সদর মডেল থানার নবাগত ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেছেন, থানা হবে জনগণের বিশ্বাস ও আস্থার জায়গা। থানা  জনগণের সেবাকেন্দ্র। জিডি, মামলা এবং পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের ক্ষেত্রে কোন ধরণের আর্থিক লেনদেন হবে না।

থানাকে ঢেলে সাজানো, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক, মাদক নির্মূলে বিশেষ অভিযান, মাদক ব্যবসায়ীদের নতুন লিস্ট তৈরীসহ যাবতীয় কার্যক্রম বাস্তবায়নে অবিচল আছেন নবাগত ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস।

কক্সবাজার জেলায় যেহেতু  সকল পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের একযোগে বদলী করা হয়েছে সেহেতু পুরাতন কাজের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে পুরোদমে কাজ শুরু করেছে জেলা পুলিশ।

জেলা পুলিশের ধারাবাহিকতায় নতুন কর্মপরিকল্পনা তৈরী, পুলিশ সদস্যদের প্রেরণা সৃষ্টি, সঠিক অপরাধীকে আইনের আওতায় আনতে যাবতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানান সদর মডেল থানার ওসি।
ওসি শেখ মুনির উল গীয়াস জানান, শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার্থে বাংলাদেশ পুলিশের যে ভূমিকা আছে সেটা পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করা হবে।

মাদক কারবারিদের নতুন তালিকা তৈরী করা হবে।  জাস্টিফাই করে তাদের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে , কি ধরনের মামলা আছে, কার প্রোফাইল কি, ডেটাবেজ তৈরীর মাধ্যমে যাচাই বাছাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তারা যে লক্ষ্য নিয়ে কক্সবাজার এসেছেন সে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে চান।

তিনি জানান, দেশপ্রেমকে প্রাধান্য দিয়ে, নতুন উদ্যমে নতুন জায়গায়, নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় ওসি হিসেবে যোগদান করেছেন। সে লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে সম্পূর্ণ পেশাদারিত্বকে কাজে লাগিয়ে সকল বাধা বিপত্তি এবং ঝুঁকি কে সামনে নিয়ে তারা কাজ করবেন।
পুরাতন অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে নতুন পরিবেশে কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধি করতে যুগোপযোগী মানুষের কল্যাণমুখী সকল উদ্যোগ বাস্তবায়ন করবেন।

তিনি আরো জানান, কক্সবাজার সদর মডেল থানার আওতাধীন যে সকল এলাকা আছে তার মধ্যে যেগুলো অপরাধ প্রবণ সে সকল এলাকাসমূহতে টহল তথা পেট্রোলিং বাড়ানো হবে। চুরি, ছিনতাইরোধে পেট্রোলিংকে আরো গুরুত্বারোপ করা হবে।
কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হয়, সে বিষয়টি বিশেষ নজরদারির মধ্যে রয়েছে বলে জানান ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস।
ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস জানিয়েছেন, সমস্যার ক্রিয়া বিশ্লেষণ করে তড়িৎ সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে।

ওসি আরো জানান, সৃজনশীল কর্মপরিকল্পনা তৈরী করে বাংলাদেশ পুলিশের আদর্শ বাস্তবায়ন করে কক্সবাজার সদর মডেল থানার নতুন টিমকে সাথে নিয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( প্রশাসন) রফিকুল আলম স্যারের নির্দেশে শান্তি শৃঙ্খলা বিরাজমান এবং আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালনে বদ্ধপরিকর কক্সবাজার সদর মডেল থানার নতুন টিম।
মাদক ব্যবসায়ীদের শনাক্তকরণ, পুরাতন মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনাসহ, পর্যটকদের নিরাপত্তা প্রদান, চুরি ছিনতাইরোধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

দালালদের খপ্পরে পড়ে সাধারণ মানুষ যাতে কোন হয়রানির শিকার না হয়, সেজন্য সদর মডেল থানায় দালালদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। কক্সবাজার সদর মডেল থানা হবে জনসাধারণের বিশ্বাস ও আস্থার জায়গা। মানুষের জনস্বার্থ এবং জনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে কাজ করে যাব সম্পূর্ণ জনকল্যাণ।

সাধারণ মানুষ যে কোন সমস্যা নিয়ে সরাসরি তার সাথে কথা বলতে পারবে। পুলিশ প্রত্যক্ষ সেবা দিতে প্রস্তুত।
মাদকমুক্ত করার ক্ষেত্রে কক্সবাজারে সকল গোয়েন্দা সংস্থা, বিজিবি র‌্যাব , মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরসহ সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস।

সর্বসাধারণের উদ্দেশ্যে নবাগত ওসি অনুরোধ করেন, তথ্য দিয়ে পুলিশকে সহযোগিতা করুন। তথ্যদাতার নাম নিরাপত্তার স্বার্থে গোপন রাখা হবে।

উল্লেখ্য যে, কক্সবাজার সদর মডেল থানায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক, ইভটিজিং ও চুরি ছিনতাই রোধ,শান্তি,শৃঙ্খলা বিরাজমান, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, পর্যটকদের নিরাপত্তার চাদরে আচ্ছাদিতসহ জনগণের সেবার দ্বার বাস্তবায়ন করতে সদর মডেল থানার আওতায়ভুক্ত জনপ্রতিনিধি, সচেতন মহল, সুশীল সমাজ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকসহ সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার নতুন ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •