ওসমান আবির :

টেকনাফ সমুদ্র থেকে অপহৃত হওয়া সাত জেলেকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের (বিজিসি) সদস্যরা।এসময় জেলেদের অপহরণ করা ডাকাতদলের পাঁচ সদস্যকে আটক করে।আটককৃত ডাকাতদলের সদস্যরা হলেন, মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার আড়িপাড়া অঞ্চলের বাসিন্দা মোঃ বাকগুল্লা (২২),মোঃ শুকুর(২০), রবি আলম(২২), নুরুল আমিন(৩০) ও শফি আলম(২০)।

টেকনাফ কোস্টগার্ড বিসিজি স্টেশান কর্মকর্তা লে. কমান্ডার আমিরুল হক বলেন, সোমবার ভোররাতে নিয়মিত টহলে থাকা কোস্ট গার্ডের একটি দল টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালী পাড়া হতে ১২ নটিক্যাল মাইল দূরে সমুদ্র থেকে ৫ জন অস্ত্রধারী ডাকাতকে আটক করে। এসময় তাদের নৌকা হতে ৭জন বাংলাদেশী জেলেকে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত জেলেরা সকলেই টেকনাফের নোয়াখালীপাড়ার বাসিন্দা। এসময় অপহরণকারীরা কোস্টগার্ডের উপর লম্বা কিরিচ ছুড়ে। এতে কোস্টগার্ডের এক সদস্য আহত হয়ে সুমদ্রে পরে যায়।

কোস্টগার্ডের এ কর্মকর্তা বলেন, ‘পরে কোস্টগার্ডও আত্মরক্ষার্থে দুই রাউন্ড গুলি চালায়। একপর্যায়ে ট্রলারসহ অপহরণকারীদের আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তিতে নৌকাটি তল্লাশী করে ২টি দেশীয় একনলা বন্দুক, ৮ রাউন্ড কার্তুজ, ১০টি বিভিন্ন ধরনের বার্মিজ ধারালো অস্ত্র ও ১টি ইঞ্জিন চালিত কাঠের নৌকা জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে উক্ত অভিযানে উদ্ধারকৃত বাংলাদেশী জেলেদের ডুবে যাওয়া একটি নৌকা উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃত ডাকাত, উদ্ধারকৃত জেলে এবং জব্দকৃত অস্ত্র ও অন্যান্য মালামাল পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড এর আওতাভুক্ত এলাকাসমূহে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রন, জননিরাপত্তার পাশাপাশি বনদস্যুতা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন ও ডাকাতি দমন রোধে কোস্ট গার্ডের জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করে, নিয়মিত অভিযান অব্যাহত আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে বলেন জানান কোস্ট গার্ডের এই কর্মকর্তা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •