পঞ্চগড় প্রতিনিধি:

পঞ্চগড় প্রেস ক্লাবে আব্দুর রহিমের উপর নৃশংস হামলার প্রতিবাদ ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবীতে ১০ অক্টোবর বেলা ১২.০০ টায় পঞ্চগড় শহীদ মিনার চত্ত্বর সংলগ্ন ঢাকা-তেতুলিয়া হাইওয়ে রোডে এক মানববন্ধন হয়েছে। মানববন্ধনে পঞ্চগড় ক্রিয়েটিভ এসোসিয়েশন, পঞ্চগড় বিদ্রোহী যুব উন্নয়ন থিয়েটার, রেঞ্জার স্পোটিং ক্লাব, করতোয়া ক্রিকেট একাদশ, মুক্ত সাংস্কৃতিক সংঘ, ষড়ঋতু শিশু শিক্ষা সেবা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন হাতে অংশগ্রহণকারী বক্তাদের মধ্যে ইবনে জায়েদ বলেন, ‘আব্দুর রহিম স্যার রাষ্ট্রপতি কর্তৃক স্বর্ণ পদকে ভূষিত শিক্ষক। তাঁর উপর হামলার তীব্র নিন্দা এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবী জানাচ্ছি। পঞ্চগড় বিদ্রোহী শিশু কিশোর থিয়েটারের শিল্পী ও শিক্ষক আর্ন্তজাতিক পদকে ভুষিত শিক্ষক তানভীর হাসান রাসেল বলেন, ‘ আমরা লজ্জিত আমরা একজন শিক্ষকের সম্মান দিতে পারিনি। আব্দুর রহিম স্যারের উপর হামলার নিন্দা জানাচ্ছি। আমরা অপরাধীদের দৃষ্টান্ত মূলক সাজা চাচ্ছি।’

আব্দুর রহিমের উপর হামলার ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য  মজাহারুল হক প্রধান এমপির সাথে কথা হলে তিনি তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আইনের উর্ধেব  কেউ নয়।  সাংবাদিক আব্দুর রহিমের উপর হামলার তীব্র নিন্দা এবং দোষীদের দৃষ্টান্ত মূলক সাজার দাবী জানাচ্ছি।’

এ ব্যাপারে বিভিন্ন সুধী মহল ব্যাপক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। প্রহৃত সাংবাদিক আব্দুর রহিম বলেন, আমি মামলা করেছি , সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচার পাব এ বিশ্বাস আমার রয়েছে।

উল্লেখ, গত ৫ অক্টোবর পঞ্চগড় প্রেস ক্লাবে অফিস কক্ষে দরজা বন্ধ করে সাংবাদিক আব্দুর রহিমের উপর নির্মম ভাবে মারধর করে সন্ত্রাসী শহিদুল এবং পরে তার ভাই সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ আব্দুর রহিমকে পিটিয়ে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। আব্দুর রহিম এব্যাপারে পঞ্চগড় চীফ জুডিশিয়াল আমলী আদালত পঞ্চগড়-১ এ বাদী হয়ে মামলা করেছেন। যার নম্বর -৪৩৭/২০।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •