এ কে এম ইকবাল ফারুক,চকরিয়া :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় মো.কলিম উল্লাহ (২৭) নামে এক যুবককে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে নিজ পিতার বিরুদ্ধে। বুধবার ৬টার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আকবরিয়া পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটলেও এদিন দিবাগত রাত ১০টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় কলিম উল্লাহ। নিহত মো.কলিম উল্লাহ ওই এলাকার কামাল উদ্দিনের ছেলে। তিনি পেশায় একজন রাজমেস্ত্রী ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বাড়ির পাশে একটি ভাড়া বাসায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন।

নিহত মো.কলিম উল্লাহ’র স্ত্রী শাহিদা বেগম বলেন, বুধবার সন্ধ্যার দিকে আমার স্বামী তার দুই ছেলেকে নিয়ে বাজারে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে আমার শ্বশুর কামাল উদ্দিন তার ছেলে কলিম উল্লাহকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এ সময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে পরে আমার চাচা শ্বশুর জয়নাল ও দেবর আরমান এবং প্রতিবেশী ইমন মিলে আমার স্বামীকে ধরে নিয়ে বাড়ির সামনে একটি গাছের সাথে বেঁধে আবারও হাতুড়ি দিয়ে পিটাতে থাকে। এক পর্যায়ে কলিম উল্লাহ’র অবস্থা আশংকাজনক হয়ে পড়লে প্রথমে তাকে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কলিম উল্লাহ’র অবস্থার অবনতি ঘটলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন। এদিন দিবাগত রাত ১০টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান কলিম উল্লাহ।

নিহতের স্ত্রী আরো বলেন, কয়েকদিন আগে আমার ছেলে বায়েজিদ মোস্তফা তার বাবার কাছ থেকে টাকা নিয়ে চকলেট কিনতে দোকানে যায়। এ সময় আমার চাচা শ্বশুর জয়নাল তাকে অহেতুকভাবে মারধর করে। পরে ছেলে বায়েজিদ ঘটনাটি তার বাবাকে জানায়। বিষয়টি জানার পর কলিম উল্লাহ তার ছেলেকে কি কারণে মারধর করেছে সে ব্যাপারে চাচা জয়নালের কাছে জানতে চাইলে দু’জনের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। পরে স্থানীয় এক কাউন্সিলর বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে বসে সমাধান করে দেন।

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো.আশরাফ হোসেন বলেন, চকরিয়া পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আকবরিয়া পাড়া এলাকায় হাতুড়ি দিয়ে বাবা তার ছেলে প্রহার করার বিয়টি স্থানীয়ভাবে শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •