মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

মেজর (অব:) সিনহা মোঃ রাশেদ হত্যা মামলায় সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তারকৃত আসামী, টেকনাফ মডেল থানার সাবেক কনস্টেবল রুবেল শর্মা’র ৭দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার ২ অক্টোবর সকালে কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে রুবেল শর্মা’কে মামলার আইও র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ খায়রুল ইসলাম তাঁর হেফাজতে নেন। এরপর কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে রুবেল শর্মা’র স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে তাকে র‍্যাব-১৫ এর কার্যালায়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট সুত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

টেকনাফ মডেল থানার সাবেক কনস্টেবল রুবেল শর্মাকে আইও প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে গত ১৪ সেপ্টেম্বর গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। কথিত আছে-সাবেক কনস্টেবল রুবেল শর্মা কারাগারে থাকা টেকনাফ মডেল থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ এর বিভিন্ন অপকর্মের অন্যতম সহযোগী ছিলেন। সাবেক কনস্টেবল রুবেল শর্মা সহ এ মামলায় মোট ১৪ জন আসামী গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য ১৩ জন আসামীকে ইতিমধ্যে রিমান্ড করা হয়েছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর মামলার আইও র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ খায়রুল ইসলামের ১০দিনের রিমান্ড আবেদন এর প্রেক্ষিতে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নম্বর-৩ (টেকনাফ) এর বিচারক তামান্না ফারাহ্ আবেদনের শুনানী শেষে রুবেল শর্মা’র ৭দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এলাকায় এপিবিএন’র চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মোঃ রাশেদ খান। এ ঘটনায় ৫ আগস্ট নিহত মেজর (অবঃ) সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে ৯জনের বিরুদ্ধে একই আদালতে মামলাটি করেন। মামলার এজাহারে রিমান্ডে নেওয়া রুবেল শর্মা’র নাম নেই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •