মোহাম্মদ হোসেন :
প্রতিবন্ধকতাকে জয় করেছে বাক্ষণবাড়িয়ার কসবা থানার আব্দুল সুকুর (৪৫)। জন্মগতভাবে প্রতিবন্ধী হয়েও হুইল চেয়ারে বসে এই দোকান ওই দোকানে মালামাল সরবরাহ করে সংসার চালাচ্ছেন তিনি। তিনি দোকানে বসে ডাল ভাজা, চানাচুর, হজমী, চকলেট, ঝুড়ি ভাজা, চিড়া ভাজা, চিপস, ললিপপসহ হরেক রকম মালামাল বিক্রি করে যা রোজগার হয় তা দিয়ে সংসার চলে। স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় তার ব্যবসা নেই বললে চলে। কোনো রকমে যা আয় করেন তা দিয়ে নিজের খাবার ও বাসা ভাড়া দিতে পারেন।

নগরীর চট্টগ্রাম কলেজ এর সম্মুখে রাস্তার ধারে হুইল চেয়ারে বসে খাদ্য সামগ্রী বিক্রি করেন। বুধবার(৩০ সেপ্টেম্বর) কথা হলে সুকুর বলেন, জীবন যুদ্ধে লড়ে নীজ পায়ে দাড়িয়ে জয়ী হতে চাই। সরেজমিন তার সাথে আলাপ করলে উঠে আসে তাদের জীবনের সাফল্য ও সংগ্রামের অনেক রূপকথার গল্প।লেখাপড়ার প্রতি প্রবল মনযোগ থাকলেও পরিবারের নানা অসুবিদায় হাইস্কুলের গন্ডি পেরোনো হয়নি তার। গ্রামের বাড়িতে স্ত্রী, তার এক ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। এখন তার দিনরাত কাটে বেঁচে থাকার জন্য নিরন্তর সংগ্রাম করে।দুমুঠো ভাতের জন্য কতই
না ঘাম ঝরান। শরীরের বাম অংশের এক পা ও এক হাত প্রতিবন্ধী এ কারণেই সুকুরের জীবন হয়ে উঠতে পারে সংগ্রামের অনুপ্রেরণা।তার স্বপ্ন তার ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ায় যেন মানুষের মত গড়ে উঠে। তিনি সবার দোয়া ও আর্থিক সহযোগিতা কামনা করেন।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •