এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ। সোমবার বেলা ১২টায় চকরিয়া থানা রাস্তার মাথাস্থ সিস্টেম চকরিয়া কমপ্লেক্সে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ কর্ণারের হলরুমে এই দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠিত খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল পরবর্তী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির হিসেবে বক্তব্য দেন, কক্সবাজার-১ চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম এমএ।

খতমে কোরান ও দোয়া মাহফিল উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী, শাহনেওয়াজ তালুকদার, সহসভাপতি এমআর চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক ও কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান শওকত ওসমান, প্রচার সম্পাদক আবু মুছা, উপ-দপ্তর সম্পাদক সাইফুদ্দিন মামুন, হেলাল উদ্দিন হেলালী, শ্রমিকলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন প্রমুখ। সভায় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দোয়া মাহফিলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুস্থ সুন্দর ও কর্মময় শতায়ু কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতি কক্সবাজার জেলার সভাপতি মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুছ আন্ওয়ারী আল আযহারী।

মাহফিলে অংশ নেন, চকরিয়া উপজেলা ইমাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও রাজাখালী বেসাতুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ কফিল উদ্দিন ফারুকী, কাকারা তাজুল উলুম মাদরাসার শিক্ষক ও সোসাইটি জামে মসজিদের সম্মানীত খতিব হাফেজ বশির আহমদসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আলেম উলামা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি এমপি জাফর আলম বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকদের কাছে শেখ হাসিনা আমানত স্বরূপ। তিনি আমাদের সকলের পথপ্রদর্শক। অন্ধকারের অমানিশা কাটিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা একটি জাতিকে নতুন পথের দিশা দেখিয়েছেন। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে দেশ দ্রুত উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আগামী নির্বাচনেও আমরা তাঁকে আবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করে তাঁর নেতৃত্বেই বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করব।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৪৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। একটি রাজনৈতিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করে শৈশব থেকেই রাজনৈতিকভাবে সচেতন ব্যক্তি হিসেবে বেড়ে ওঠেন। ছাত্রজীবন থেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতিতে জড়িত হন। তিনি পাকিস্তান বিরোধী আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। জাতির পিতার কন্যা হওয়া সত্ত্বেও তার জীবন কখনো মসৃণ ছিল না।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু এবং দেশ ও জাতির সুখ, সমৃদ্ধি, শান্তি ও উন্নয়ন কামনা করেন এমপি জাফর আলম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •