সিবিএন ডেস্ক:
চট্টগ্রাম নগরের ডবলমুড়িং থানার সুপারিওয়ালা পাড়া এলাকায় এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুইজনকে আটক করছে পুলিশ।

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে তাদের আটক করা হলেও এ ঘটনায় এখনও কোনো মামলা হয়নি।

ডবলমুড়িং থানার এসআই শামীমা জাগো নিউজকে বলেন, রাতে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ পেয়ে দুইজনকে আটক করে পুলিশ। সকালে ভিকটিমের মামলা করার কথা থাকলেও তারা এখনো থানায় আসেননি। এ ঘটনায় আটক দুইজনকে থানা হাজতে রাখা হয়েছে। ভিকটিম মামলা করতে এলে বিস্তারিত জানা যাবে।

এমন এক সময় চট্টগ্রামের এ ধর্ষণের খবর এলো যখন সিলেটের ঘটনায় সারা দেশে তোলপাড় চলছে।

সিলেটের ওই ঘটনায় সর্বশেষ রাজন আহমদ (২৮) নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১টার দিকে সিলেটের ফেঞ্জুগঞ্জের কচুয়া নয়াটিলা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৯ এর একটি দল। এ সময় রাজনকে পালাতে সহযোগিতা করায় আইনুল ইসলাম নামের আরেক ব্যক্তিকেও আটক করা হয়।

র‌্যাব-৯ সিলেটের একটি সূত্র গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। গ্রেফতার রাজন ছাত্রাবাসে তরুণীকে গণধর্ষণ মামলার অজ্ঞাত আসামি ছিলেন। ছায়া তদন্তে নেমে র‌্যাব এ তথ্য নিশ্চিত হয়ে রাজনকে গ্রেফতার করে। এ নিয়ে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করা হলো। এর মধ্যে চারজন মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। আর অপরজন মামলার অজ্ঞাতনামা আসামি।

র‌্যাব ও ডিবি সূত্রে জানায়, এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ মামলার রাজন নামের আরেক আসামি ফেঞ্জুগঞ্জ উপজেলার কচুয়া নয়াটিলা এলাকা তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপনে রয়েছেন, এমন খবরে অভিযান চালানো হয়। পরে রাত ১টার দিকে রাজন ও তার সহযোগী আইনুলকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাকে সিলেট নিয়ে আসা হয়েছে।

এর আগে রোববার সন্ধ্যায় এ মামলার আরেক আসামি মাহবুবুর রহমান রনিকে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৯ এর একটি দল। একই সময়ে মামলার অন্যতম আসামি রবিউল হাসানকে নবীগঞ্জ উপজেলা থেকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। এছাড়া রোববার সকালে সুনামগঞ্জের ছাতক খেয়াঘাট এলাকা থেকে গণধর্ষণ ও অস্ত্র মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আর অর্জুন লস্করকে গ্রেফতার করা হয় হবিগঞ্জের মাধবপুরের মনতলা থেকে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •