ইয়ামিন শাহরিয়ার
কলা খাবেন ভালো কথা কিন্তু তার খোসাটা রাস্তায় ফেলবেন এটা কোন ধরনের জঘন্যতম ভদ্রতা, তা মস্তিষ্কের কঠিন কাঠামোতে সাঁই দিচ্ছেনা। আপনি কি জানেন সামান্য একটা কলার খোসা (চামড়া) কতবড় দুর্ঘটনার কারণ হয় বা হতে পারে?
    একজন মানুষ বাইক চালিয়ে যাচ্ছে। চাকাটা কলার খোসায় পড়ার সাথে সাথে পিছলে পড়ে জীবন-মরণের সন্ধিক্ষণে দিন পার করছে! একজন মানুষ ফুটপাত দিয়ে হেটে যাচ্ছে। হুট করে পা পিছলে তার হাত বা পা ভেঙ্গে গেছে। পরে দেখা গেছে কলার খোসার উপর পা পড়ছে। এই যে কলার খোসাটা কে ফেলছে চলাচলের পথে? নিশ্চয় আমার আপনার মতো কোন সুশীল সমাজের ভদ্র/অভদ্র লোক!
আজ সন্ধায় টিউশন থেকে আসার সময় এমন একটি দুর্ঘটনার স্বীকার হলাম। পরে কাদামাটি ঘেটে দেখি আমার পা পড়ছে কলার খোসার উপর। ভাগ্য বলা বড় কোন আঘাত পাইনি, আলহামদুলিল্লাহ।
   আমার কথা হচ্ছে, শুধু কলার খোসা কেন? নির্দিষ্ট ডাস্টবিন বা ময়লা ফেলার স্থান ছাড়া একটা বাদামের খোসা কিংবা সামান্য একটা চকলেটের প্যাকেটও কেন আমি ফেলবো? হোয়াই? আমার তো অন্তত একটা কমনসেন্স থাকা দরকার যে, আমি যেখানে-সেখানে সিগারেটের অবশিষ্ট অংশ, চিপসের প্যাকেট, কাগজ, টিস্যু ইত্যাদি ফেলছি, তা কে তুলে নিবে? আমি-আপনি তো কখনো সেসব তুলতে যাবোনা। তাই না? যারা ক্লিনারি কাজ করছে, আমার আপনার যত্রতত্র নিক্ষেপ করা আবর্জনাগুলো তাদের পক্ষে তুলে নেওয়া কি সম্ভব? তাও আবার এই ভরপুর কাদামাখা রাস্তা থেকে?
ছোট্ট একটা গল্প বলি যেটা নিয়ে আগে আমি একটা ভিডিও কন্টেন্টও বানিয়েছিলাম।
একদিন একটা প্রোগ্রামে যাচ্ছিলাম। গাড়িতে আমার বিপরীত সারিতে তিনজন মেয়ে ছিলো। ওদিন সকালে নাস্তা করার পর অসতর্কতাবশত ব্যবহৃত টিস্যুটা গাড়ি থেকে রাস্তার ধারে ফেলি। তখন আমার বিপরীত সারিতে বসা একজন মেয়ে আমাকে জিজ্ঞেস করছিলো, “ভাইয়া, আপনি যে টিস্যুটা ফেলছেন সেটা কে নিবে?” অনেক ভেবে আমি এখনো সেই প্রশ্নের উত্তর খোঁজে পাইনি। সেদিন মাথা নত করে মেয়েটাকে ‘সরি’ বলে বিষয়টা সামাল দিয়েছিলাম। তারপর থেকে নিজেই দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করেছি, “আমৃত্যু কখনো কোথাও আর এভাবে ময়লা ফেলবোনা।” তাই করে আসছি বিগত দু’বছর…।
এমনও হয়েছে বন্ধুরা সবাই বাদাম খাচ্ছিলাম। তারা খেয়ে খেয়ে বাদামের খোসাগুলো নিচে ফেলিতেছিলো, সেদিন তাদেরকে অনুরোধ করছিলাম এবং সবার বাদামের খোসাগুলো কাগজে মুড়িয়ে নিজের পকেটে নিয়ে পরে বাড়িতে এসে ডাস্টবিনে ফেলছি। আর সেই জায়গায় যত্রতত্র পলিথিন, টিস্যু কিংবা কলার  খোসা ফেলা তা তো অনেকদূর…।
  সুতরাং, সবার প্রতি অনুরোধ, কলার খোসা, পলিথিন, চিপসা বা চকলেট এর প্যাকেট, টিস্যু কিংবা অন্য যেকোন আবর্জনা যত্রতত্র না ফেলে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলুন! এতে ক্লিনারদের কাজ করতেও সুবিধা হবে এবং আশপাশও পরিষ্কার থাকবে। মনে রাখবেন, আপনার কোন কাজ যেন কারো মারাত্মক দুর্ঘটনার কারণ না হয়।
লেখক:  ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষার্থী, কক্সবাজার সরকারী কলেজ।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •