বার্তা পরিবেশকঃ
মালিকের বিশ্বস্থতাকে পুঁজি করে চার লক্ষ টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়ে গেছে মোঃ শফিক (২৬) নামের দোকানের কর্মচারী। তিনি শহরের ইসলামপুর পাহাড়তলীর বাসিন্দা।
ঘটনার পর থেকে তার হদিস না পেয়ে বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এজাহার দায়ের করেন আপন টাওয়ারের সামনের গার্মেন্টস শপ ‘ব্ল্যাক আই’ এর মালিক নুর মোহাম্মদ।
যার স্মারক নং-৮৫০৬।
অভিযুক্তরা হলেন, শহরের ইসলামপুর পাহাড়তলীর মোঃ শফিক (২৬) ও তার ভাই মোঃ ইউনুছ (৩৫)।
এজাহার সূত্রে জানা যায়, মোঃ শফিক দুই বছর ধরে ‘ব্ল্যাক আই’ এ চাকরি করে আসছিলেন। সেই সুবাধে মালিক নুর মোহাম্মদের বিশ্বস্থতা অর্জন করে দোকানের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক দিক দেখাশুনা করতেন।
বিশ্বস্থতার খাতিরে মোঃ শফিককে বিভিন্ন সময় ব্যবসায়িক টাকা দিয়ে আর্থিক লেনদেন পরিচালনার জন্য ব্যাংকে পাঠান মালিক নুর মোহাম্মদ। এর আগে তার কোনো ধরণের অনিয়ম কিংবা চুরি জনিত কর্মকান্ড পরিলক্ষিত না হওয়ায় মালিকের আরো গভীর বিশ্বস্থতা অর্জন করে।
সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতির কারণে মালিক নুর মোহাম্মদ ব্যবসায়িক মন্দার কবলে পড়ে আর্থিক দৈন্য-দশাগ্রস্থ হওয়ায় ব্যবসায়ে মালামাল যোগান দেয়ার জন্য মামা নুর মোহাম্মদ চৌধুরীর কাছ থেকে ধার হিসেবে চার লক্ষ টাকা আদায়ের জন্য দোকানের কর্মচারী বিশ্বস্থ মোঃ শফিককে ব্যাংকে পাঠালে শফিক উক্ত চার লক্ষ টাকা বুঝে নিয়ে পালিয়ে যায়।
অনেক অপেক্ষা ও খোঁজাখুজির পর শফিকের সন্ধান না পেলে তাঁর বড় ভাই ইউনুছের সাথে যোগাযোগ করে দোকান মালিক নুর মোহাম্মদ।
শফিকের বড় ভাই ইউনুছ প্রথমে আত্মসাতের টাকাগুলো পরিশোধ করবে বললেও কালক্ষেপন করে। পরে ভাই এবং আরো কয়েকজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের যোগসাজসে মামলা না করার জন্য দোকান মালিক নুর মোহাম্মদকে হুমকি দমকি দেন।
এই ঘটনায় অসহায় দোকান মালিক নুর মোহাম্মদ কোনো উপায় না দেখে আইনের আশ্রয় পেতে কক্সবাজার সদর থানায় এজাহার দায়ের করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •