ওসমান আবির:
টেকনাফে অভিযান চালিয়ে ৩ লাখ ৫০ হাজার পিচ ইয়াবা উদ্ধার করেছে টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন।গতকাল রাতে হ্নীলা ইউনিয়নের ছুড়িখাল সংলগ্ন নাফ নদীর তীর এলাকা থেকে ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয়।তবে এসময় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান।

বিজিবির তথ্যসূত্রে জানা যায়,গতকাল বুধবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি জানতে পারে হ্নীলা ইউনিয়নের লেদার ছ্যুড়িখাল এলাকার নাফনদী দিয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান বাংলাদেশে প্রবেশ হতে পারে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে লেদা বিওপির একটি বিশেষ টহলদল উক্ত এলাকায় গমন করে গোপনে অবস্থান নেন।কিছুক্ষণ পর আনুমানিক রাত ৯টার সময় মিয়ানমার হতে নৌকাযোগে কয়েকজন ব্যক্তিকে ছ্যুড়িখাল সংলগ্ন কেওড়া জঙ্গল পার হতে দেখে অবস্থানরত টহলদলের সদস্যরা তাদের ধরার জন্য খাল পার হয়ে কেওড়া জঙ্গলে প্রবেশ করে তাদের চ্যালেঞ্জ করে।এমন সময় মাদক পাচারকারীরা দূর থেকে টহলদলের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্ধকারের সুযোগে নৌকা বিপরীত দিকে ঘুরিয়ে নিয়ে শূণ্য রেখা অতিক্রম করে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলে যায়।পরবর্তীতে টহলদল বর্ণিত স্থানে কেওড়া জঙ্গল তল্লাশী করে ৪টি প্লাস্টিকের বস্তা উদ্ধার করে।এরপর বস্তাগুলো তল্লাশী করে ৩ লাখ ৫০ হাজার পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে।যার আনুমানিক মূল্য ১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা প্রায়।

এদিকে, পাচারকারীদের আটকের নিমিত্তে বর্ণিত এলাকার নদী সহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় বেশ কিছুক্ষণ অভিযান পরিচালনা করেন টহলদলের সদস্যরা।তবে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

উদ্ধারকৃত ইয়াবাগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে, যা পরবর্তীতে উদ্ধর্তন কর্মকর্তা,মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি ও স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে বলে জানান লে.কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •