হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ:
টেকনাফের অন্যতম জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকা হ্নীলা বাসষ্টেশনের অন্যতম জনগুরুত্বপূর্ন পুরান বাজার সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় চমর ভোগান্তি স্থানীয়রা। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এই সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করলেও একটি কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় কাজ বন্ধ করে চলে যাওয়ায় জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।
জানা যায়, হ্নীলা ষ্টেশন-পুরান বাজার এই জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক দিয়ে হ্নীলা হাইস্কুল,সরকারী প্রাইমারী স্কুল, হ্নীলা শাহ মজিদিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা, তহশিল অফিস, কাস্টম্স অফিস, বিজিবি ক্যাম্প, পোস্ট অফিস ও উপজেলার অন্যতম দাতব্য প্রতিষ্ঠান গুহাফাসহ সুলিশ পাড়া, গুদামপাড়া, বাজার পাড়া, মগপাড়া, পূর্ব ফুলের ডেইল, দক্ষিণ ফুলের ডেইল ও পূর্ব সিকদার পাড়ার হাজার হাজার বাসিন্দা রয়েছে। খানা-খন্দকে ভরপুর আভ্যন্তরীণ এবং এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন চরম ভোগান্তি নিয়ে শত শত যানবাহন এবং হাজার হাজার মানুষের আনা-গোনা অব্যাহত রয়েছে। এই ভোগান্তি লাঘবের জন্য প্রাথমিকভাবে এলজিইডির অর্থায়নে হ্নীলা ষ্টেশন-পুরান ইউনিয়ন পরিষদ ভবন অর্থাৎ তহসিল অফিস পর্যন্ত ৭শ মিটার সড়ক সংস্কারের জন্য ৩ বার রি-টেন্ডারের পর দরপত্র আহবান করে।
সর্বসাকূল্যে ২০লক্ষ টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রামের এম.এম এন্টার প্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এই সড়ক সংস্কারের কাজ পায়। উক্ত প্রতিষ্ঠান এই সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু করে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সিডিউল মোতাবেক প্রায় এক মাসধরে কাজ চলাকালীন হঠাৎ গ্রæপ অন্যায়ভাবে কাজে বাঁধা প্রদান করে হুমকি-ধমকি দেওয়ায় কাজ বন্ধ রয়েছে বলে ঠিকাদার মুজিব জানান।
পূর্ব সিকদার পাড়ার বাসিন্দা, শিক্ষক ও কবি আবুল হোছাইন হেলালী জানান,অত্র ইউনিয়নের জন্য এই সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারো হীন স্বার্থ চরিতার্থের জন্য হাজার হাজার মানুষের দূর্ভোগ কাম্য নয়। এই সড়কটির সংস্কার কাজ দ্রæত বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সুদৃষ্টি কামনা করছি।
এই ব্যাপারে হ্নীলা ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী বলেন,দীর্ঘদিন পর এই জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটি সংস্কারের জন্য অনেক তদবির করে কাজ শুরু করা হয়। কাজ চলাকালীন হঠাৎ কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়া এলাকাবাসীর জন্য খুবই দুঃখজনক। আমি আশাকরি এলাকার টেকসই উন্নয়নে সকলে সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসবেন।
এই জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটি সংস্কারের জন্য খোড়াঁখুড়ির পর সংস্কার কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হাজার হাজার মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। এতে ভূক্তভোগীরা এই সড়কের উন্নয়ন কাজ পুনরায় শুরু করার পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •