শাহেদ মিজান, সিবিএন:
দুইদিন। মহেশখালী নৌরুটে ফিশিংবোটের ধাক্কায় ঘামবোট থেকে পড়ে নিখোঁজ তোফাইল মাহামুদ (২২) এর লাশ মিললো সোনাদিয়ায়। আজ মঙ্গলবার। সকাল ১০টার দিকে সোনাদিয়ার মগচর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।
মহেশখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিদারুল ফেরদৌস বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের সিপাহীর পাড়া গ্রামের নাগু মিয়ার পুত্র ও সে চট্টগ্রাম কলেজের অনার্সের ছাত্র গত শনিবার (২০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কক্সবাজার ৬নং জেটি ঘাট থেকে মহেশখালী অভিমুখে গোরকঘাটা সিকদার পাড়ার আব্দু সবুরের মালিকানাধীন ও বশির মাঝির চালিত ৩৮জনের একটি যাত্রীবাহী গামবোট যাত্রী নিয়ে আসছিল। বাঁকখালীর খারির বয়া সংলগ্ন এলাকায় বালি ভর্তি একটি টেংকার অবস্থান করছিল। স্রোতের গতিতে ৩৮জন যাত্রী নিয়ে আসা ঘামবোটটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে টেংকারের পাশ কাটতেই উত্তর দিক থেকে মাছ ভর্তি একটি ফিশিংবোট যাত্রী বাহী ঘামবোটে সজোরে ধাক্কা দেয়। এসময় ৩জন যাত্রী বাঁকখালী নদীতে পড়ে যায়। বোটের মাঝিসহ অপর যাত্রীরা ২জন যাত্রীকে উদ্ধার করতে পারলেও তোফাইল নিখোঁজ হয়ে যায়।
দুইদিন অনেক খোঁজ করেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। অবশেষে সোনাদিয়ার চরে লাশটি ভেসে এসেছে।

মহেশখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিদারুল ফেরদৌস বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান, লাশটি বিবর্ণ হয়ে গেছে। হাতের আঙুল বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। লাশটি উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •