ওসমান আবির:
টেকনাফের রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পে পঞ্চাশ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায়ের পর মোঃ রশীদ (২১) নামে একজন অপহৃত রোহিঙ্গা যুবককে ফেরত দিতে এসে এপিবিএন সদস্যদের হাতে একজন রোহিঙ্গা অপহরনকারী যুবক গ্রেফতার হয়েছে।অপহরণকারী যুবক লেদা রোহিঙ্গা শিবিরের এ-ব্লকের বাসিন্দা মোস্তাকের পুত্র মোঃ সাদেক (২৫)।

এই ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার লেদা রোহিঙ্গা শিবিরের পশ্চিশ পাশে দুর্গম পাহাড়ের পাদদেশে।এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার ১৬ এপিবিএনের কমান্ডিং অফিসার হেমায়েতুল ইসলাম।

গত বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ ঘটিকার সময় নয়া পাড়া রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্প হতে লেদা রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পে বেড়াতে আসে যুবক মোঃ রশীদ।এসময় লেদা রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের ৫/৬ জন অপহরনকারী চক্র তাকে ধরে নিয়ে শিবিরের পশ্চিমে দুর্গম পাহাড়ে নিয়ে যায়।এরপর তাকে জীবিত উদ্ধারের জন্য পরিবারে কাছ থেকে মুক্তিপণ দাবি করলে বিকাশের মাধ্যমে অপহৃত যুবকের পরিবার ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায় করে।মুক্তিপণ আদায়ের পর ছেড়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে অপহরণকারীর চক্রের এক সদস্য ও অপহৃত যুবকসহ পাহাড় থেকে নামার গোপন খবরের ভিত্তিতে সেখানে এপিবিএন সদস্যের একটি দল অভিযান পরিচালনা করে অপহৃত যুবক রশীদকে উদ্ধার করে।এসময় অপহরনকারী চক্রের মোঃ সাদেক নামে একজন যুবককে গ্রেফতার করে।পরবর্তীতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে তার সাথে থাকা আরও ৭ জন পলাতক সহযোগীর নাম পাওয়া যায়।তারা হলেন, আব্দুল্লাহ, আনোয়ার, নূর মোহাম্মদ, জাফর, সাব্বির ও ইয়ামিন।তারা সকলেই লেদা রোহিঙ্গা শিবিরের বাসিন্দা।

এ বিষয়ে গ্রেফতারকৃত আসামী ও তার সকল সহযোগীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অপহরণ মামলা রুজু করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামীকে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •