বার্তা পরিবেশক:
কলাতলীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কটেজ দখলের অপেচষ্টা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলাকারীরা সশস্ত্র অবস্থায় দফায় দফায় হামলা করেছে। গতকাল রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) ৯৯ব্রাইডাল হাউস সংলগ্ন কটেজটি দখলে এই ঘটনা ঘটে। কটেজের ভাড়াটে নূরুল কবির পাশা এই অভিযোগ করেছেন।

তিনি জানান, কটেজের মালিক আনোয়ার হোসেন বিদেশ থাাকায় তৎকালীন সময়ে তার মেয়ে জামাই আতিকুর রহমানকে পাওয়ার দিয়েছিলেন তিনি। আতিকুর রহমান  থেকে কটেজটি চুক্তিতে ভাড়া নেন নুরুল কবির পাশা। কিন্তু আনোয়ার হোসেন বিদেশ থেকে এসে মেয়াদ শেষ না হতেই প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে একরাম নামে আরেকজনকে ভাড়া দেয় ।  এর প্রতিকার চেয়ে আদালতের শরণাপন্ন হন প্রকৃত ভাড়াটে নূরুল কবির পাশা। তার। আবেদনের প্রেক্ষিতে স্থিতিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশ দেয় আদালত।
নুরুল কবির পাশা অভিযোগ করেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞা না মেনে অন্যায়ভাবে কটেজটি দখলের অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে মালিক আনোয়ার হোসেন ও অবৈধ ভাড়াটিয়া একরাম। এর অংশ হিসেবে সর্বশেষ গতকাল শনিবার ৩০/৪০ জন সশস্ত্র ভাড়াটে লোকজন নিয়ে কটেজটি দখল করতে আসে একরাম। হামলায় নেতৃত্ব দেয় পোকখালীর সোয়াইব। তাদের সাথে মালিক আনোয়ার হোসেনও যোগ দেয় বলে অভিযোগ করেন নুরুল কবির পাশা। তারা কয়েক দফা কটেজটি দখলের চেষ্টা চালায়। এক পর্যায়ে কটেজের সিসিটিভি ক্যামেরা খুলে নেয়। পরে তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। কিন্তু খবর পেয়ে নুরুল কবির পাশা ও আত্মীয়রা এগিয়ে এলে দখল চেষ্টাকারীরা পিছু হটে যায়। তারা কটেজ স্থান থেকে পিছু হটলেও রাত পর্যন্ত আশেপাশের স্থানে অবস্থান করছে বলে জানা গেছে। তাদের সাথে কিছু উচ্ছৃঙ্খল মহিলাও যোগ দিয়েছে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী নুরুল কবির পাশা।
পাশা জানান, কটেজ দখল করতে আসা লোকজন ভাড়াটে এবং তাদের অধিকাংশই ঈদগাঁও থেকে আনা হয়েছে। ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দিয়ে এভাবে কটেজটি দখলের চেষ্টা করায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন নুরুল কবির পাশা।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই বেলাল উদ্দীন জানান, ওই কটেজে দ্বিতীয় পক্ষকে হস্তক্ষেপ না করতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এর জন্য শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আমারা সে মতো নোটিশ জারি করেছি। নোটিশ অমান্য করে কটেজটি দখলের চেষ্টা আদালত অবমাননার শামিল। দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভিডিও:

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •