নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া :

চকরিয়া উপজেলার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নে অনৈতিক কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকতে বলার জেরে জন্মদাতা মা-বাবাকে দুইদফা শারিরীকভাবে মারধর করেছে অবাধ্য ছেলে রাজিব উদ্দিন প্রকাশ ইউসুফ। এ ঘটনায় নির্যাতিত বাবা আহমদ নবী বাদি হয়ে চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি নালিশী অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে আদালতের বিচারক রাজীব কুমার দেব মামলার শুনানী শেষে অভিযুক্ত অবাধ্য ছেলে রাজিবের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছেন।

হামলার শিকার ভূক্তভোগি বাবা চকরিয়া উপজেলার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডর সুরাজপুর ভিলেজারপাড়া শান্তিপুর গ্রামের মৃত গোলাম ছোবহানের ছেলে আহমদ নবী (৪৮) জানান, তাঁর ছেলে রাজিব উদ্দিন প্রকাশ ইউসুফ (২৮) একজন অবাধ্য সন্তান। রাজিব দীর্ঘদিন ধরে মাদকাসক্ত, উশ্খৃংল, বেপরোয়া জীবন-যাপন করছেন।

পরিবারের পক্ষথেকে আমরা তাকে অনৈতিক কর্মকা- থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। সর্বশেষ এরই জেরে গত ১৪ আগষ্ট বিকালে প্রথমদফায় বাবা আহমদ নবী ও বোন শামীমা আক্তারের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় গত ২০ আগস্ট চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি ফৌজদারী অভিযোগ (মামলা নং সিআর ৫৬৩/২০) দায়ের করেন বাবা আহমদ নবী।

আদালত নালিশী অভিযোগটি আমলে চকরিয়া থানাকে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেন। এরই প্রেক্ষিতে থানার উপপরিদর্শক মফিজুর রহমান তদন্ত সাপেক্ষে গত ৮ সেপ্টেম্বর একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এদিকে আদালতে মামলা করায় ছেলে রাজীব আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। সর্বশেণষ গত ১২ সেপ্টেম্বর বিকালে বাবা আহমদ নবীর উপর আবারও হামলা চালায়। এতে আহমদ নবীর মুখের দুইটি দাঁত উপড়ে যায় এবং সর্বশরীরে জখমপ্রাপ্ত হয়। ওইসময় তাকে বাঁচাতে স্ত্রী (ছেলের মা) রোকেয়া বেগম এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে ছেলে রাজীব।

ঘটনাপরবর্তী স্থানীয় লোকজন এগিয়ে গিয়ে আহত মা-বাবাকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। তিনদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ১৫ সেপ্টেম্বর ছেলের বিরুদ্ধে আদালতের আরো একটি মামলা (নং সিআর ৭১৭/২০) করেন আহত বাবা আহমদ নবী।

আদালতের বিজ্ঞ বিচারক রাজীব কুমার দেব ফৌজদারী অভিযোগটি আমলে নিয়ে তাৎক্ষনিক অভিযুক্ত অবাধ্য ছেলে রাজিব উদ্দিন প্রকাশ ইউসুফের বিরুদ্ধে সরাসরি গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •