অনলাইন ডেস্ক : কখনও কখনও অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে অনাকাঙ্ক্ষিত বা অপরাধমূলক কিছু পোস্ট করে, যা আপনাকে বিপদ ও বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে ফেলে দেয়। এমন পরিস্থিতিতে পড়লে কী করবেন তা জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ।
যা করবেন-
আইডি উদ্ধারের জন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে বার্তা পাঠাবেন। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে অ্যাকাউন্ট ফেরত দেয় না। তাদের কাছে কিছু তথ্যপ্রমাণ পাঠাতে হয়। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সেগুলো খতিয়ে দেখবে, আপনার দাবি সঠিক কি না। আর সেই সময়ের মধ্যে কিন্তু প্রতারক চক্র আপনাকে বিপদে ফেলতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত বার্তা পোস্ট করে।
ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাকড হলে বিষয়টি জানার সঙ্গে সঙ্গে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে। আর তা হলো পুলিশকে জানানো। দ্রুত আপনার কাছের থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করুন। জিডি যেকোনো ঝামেলা এড়াতে আইনি সুরক্ষা দেবে।
নিরাপদ ফেসবুক ব্যবহারে আপনার করণীয়-
পাসওয়ার্ড রক্ষা করতে হবে
কখনও আপনার পাসওয়ার্ড কারো সাথে শেয়ার করা যাবে না।
অনুমান করা কঠিন এমন পাসওয়ার্ড নির্বাচন করুন। কখনও নিজের নাম বা সাধারণ শব্দ পাসওয়ার্ড এ ব্যবহার করা উচিত না।
ফেসবুক পাসওয়ার্ড শুধু ফেসবুকের জন্য ব্যবহার করা উচিত। অন্য কোন সিকিউরিটির ক্ষেত্রে একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করলে তা প্রকাশ পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
নিউজ ফিডে অথবা মেসেঞ্জারে সন্দেহজনক কোন লিঙ্ক আসলে রিমুভ করে দিন। অপরিচিত লিঙ্কে ক্লিক করবেন না।
ফেসবুক অ্যাকাউন্টে বিকল্প ই-মেইল আইডি যুক্ত করুন। যদি আপনার প্রোফাইল কোনো কারনে হ্যাকও হয়ে যায় সেক্ষেত্রে ফেসবুক আপনার দ্বিতীয় ইমেইলে আপনার অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধারের জন্য তথ্য পাঠাবে।
অপরিচিত কারও ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট গ্রহণ করার আগে তার প্রোফাইল চেক করে নিতে হবে।
কেউ যেন আপনার ফেসবুক একাউন্টে লগইন করতে না পারেন তাই অতিরিক্ত নিরাপত্তা (Login Approvals) ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য ফেসবুকের Two step verification পদ্ধতি চালু করুন।
ই-মেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখতে হবে।
ব্যবহার শেষে ফেসবুক একাউন্ট থেকে অবশ্যই লগ আউট করতে হবে।
ব্যক্তিগত কোনো ছবি, তথ্য (ফোন নাম্বার, ঠিকানা, ই-মেইল এড্রেস ইত্যাদি) ফেসবুকে শেয়ার করা উচিত না।
আপনার পোস্ট কারা দেখতে পারবে তা সতর্কভাবে নির্বাচন করতে হবে।
পাবলিক কম্পিউটারে (সাইবার ক্যাফে, ল্যাব ইত্যাদি) ফেসবুক ব্যবহার না করা উত্তম। ব্যবহারের পর লগ ইন হিস্টোরি মুছে ফেলুন।
ভুক্তভোগীর করণীয়:
ফেসবুক হ্যাকের মাধ্যমে হয়রানি কিংবা বিড়ম্বনার শিকার হলে কালক্ষেপণ না করে নিকটস্থ থানা পুলিশকে অবহিত করুন এবং জিডি অথবা মামলা করুন।
পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটে অভিযোগ করুন। ইমেইলে জানাতে পারেন cyberhelp@dmp.gov.bd ঠিকানায়। অথবা সরাসরি হেল্পডেস্কে কথা বলতে পারেন ০১৭৬৯৬৯১৫২২ নম্বরে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •