মোহাম্মদ হোসেন, হাটহাজারী :
৭৮ বছর আগে নির্মিত ঝুকিপুর্ণ ভবনে চলছে চিকিৎসা সেবা। চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার চিকনদন্ডী স্টুয়ার্ড ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে সহকারী চিকিৎসক দিয়েই চলছে চিকিৎসা সেবা। প্রতিদিন শতাধিক রোগী চিকিৎসা নিতে আসে এই চিকিৎসা কেন্দ্রে। সরেজমিন ঘুরে ডাঃ শাহানা নামে একজন সহকারী চিকিৎসকের সাথে দেখা মিলেছে। রোগীদের ভীড়ে একজন চিকিৎসক সেবা দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছিল।

তিনি বলেন, স্টুয়ার্ড ইউনিয়ন স্বাস্থ্যা কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে নিয়মিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। জরাজীর্ণ ভবন,রুম সংকট,রোগীদের বসার সমস্যা এত সমস্যার মাঝেও তিনি রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। নিয়মিত বিভিন্ন স্থান থেকে রোগীরা চিকিৎসা নিতে আসে এখানে, যার কারনে প্রতিদিন গড়ে ৭০ থেকে প্রায় ১০০ জন পর্যন্ত রোগী। রোগীদের নাম রেজিষ্টার খাতায়
রোগীদের নামও এন্ট্রি করা হয়। জটিল রোগে আক্রান্ত রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। জ্বর,সর্দি, ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া আক্রান্ত হয়ে বেশি ভাগ রোগী চিকিৎসা নিতে আসে।

চট্টগ্রাম জেলা সদর হতে দূরত্ব ১৪ কিঃ মিঃ চিকনদন্ডী স্টুয়ার্ড ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র। প্রতিদিন বেশির ভাগ রোগী আসে উত্তর ফতেয়াবাদ, দক্ষিণে সিটি কর্পোরেলশন, পূর্বে দক্ষিণ মাদার্শ ও শিকার পুর ইউনিয়ন অবস্থিত নেহালপুর, ফতেয়াবাদ, চিকনদন্ডী, খন্দকিয়া গ্রাম, এবং পশ্চিমে সিটি কর্পোরেশন এর ১নং ওয়ার্ড, দক্ষিণ পাহাড়তলী থেকে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ জাকেরসহ অনেকের সাথে কথা হলে তারা জানিয়েছেন,চিকিৎসার স্বার্থে এখানে চিকিৎসক আরো বাড়ানো হলে হয়ত এলাকার লোকজন চিকিৎসা সেবা পাবে। গুরুত্বপুর্ণ এলাকাটিতে ঘন বসতিপুর্ণ থাকায় প্রতিদিন এই চিকিৎসা কেন্দ্রে রোগীর সংখ্যা বাড়লেও চিকিৎসক নেই।

একটি পুরানো ঝুঁকিপুর্ণ ভবনে চলছে চিকিৎসা সেবা। ১৯৪২ চিকনদন্ডী স্টুয়ার্ড ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়। এত বছর অতিবাহিত হলেও এখানে নতুন করে কোনো ভবন নির্মাণ করা হয়নি।

এখানে একটি ২০ শর্য্য স্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ে তোলা হলে এখানকার চিকিৎসা সেবা আরো এগিয়ে যাবে। চট্টগ্রাম-হাটহাজারী মহাসড়কের সাথে লাগোয়া চিকনদন্ডী স্টুয়ার্ড স্বাস্থ্য কেন্দ্রের জায়গাটি সরকারের খুবই গুরুপুর্ণ হলেও রক্ষণাবেক্ষণে অভাবে আশপাশে বেদখল হওয়ার আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্যা কর্মকর্তা ডাঃ ইমতিয়াজ হোসাইন সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, স্টুয়ার্ড স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিত্যক্ত জায়গা খালি থাকায় আশপাশে বেদখলে চলে যাচ্ছে বলে তিনি স্বীকার করেন। তবে নতুন ভবন ও আরো চিকিৎসকের বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবেন বলে জানান। এলাকাবাসী স্টুয়ার্ড ইউনিয়ন স্বাস্থ্যা কেন্দ্রটি’র পরিত্যক্ত জমিতে নতুন ভবন নির্মাণ করে আরো চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়ার দাবী জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •