cbn  

পেকুয়া প্রতিনিধি :

কক্সবাজারের পেকুয়ায় মেয়েকে রশি দিয়ে বেধে রেখে মাকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় মা মেয়েকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার টইটং ইউপির নাপিতখালীস্থ কাদির পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, একই এলাকার আবুল কালামের স্ত্রী হালিমা বেগম (৪২) ও তার দশম শ্রেণির পড়ুয়া মেয়ে রিমা আক্তার (১৪)।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার কিছু সময় আগে আবুল কালামের মেয়ে টইটং উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী রিমা আক্তার বাড়ি থেকে বের হয়ে পার্শ্বের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। ওই সময় স্থানীয় নুরুল হোসেন, নজরুল, আদর, রুবেল, মাশুকা, ডলি, কাজলসহ আরো বেশ কয়েকজন মিলে ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে যায়। নুরুল হোসেনের বাড়িতে বেধে রেখে মেরে আহত করে। এ খবর মা হালিমা বেগম জানতে পেরে মেয়েকে খোঁজতে ওই বাড়ির দিকে যাওয়ার পথে তাকেও ধরে নিয়ে যায়। মা গিয়ে দেখতে পায় মেয়েকে টিউবেলের সাথে রশি দিয়ে বেধে রেখেছে। প্রতিবাদ করার সাথে সাথে মাকেও মারধর করে হাত ভেঙে দেন। স্থানীয়রা এখবর পেকুয়া থানার ওসিকে অবগত করলে থানার এসআই নুরুননবী একদল পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মা ও মেয়েকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন।

এবিষয়ে আহত হালিমা বেগমের ভাগিনা নুরুল আমিন বলেন, সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্তরা আমার খালাম্মাকে মারধর করার পর গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার চেষ্টা ও খালাতো বোনকে কোমরে রশি দিয়ে বেধে নির্যাতন চালায়। পুলিশ ও চৌকিদার গিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে।

পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ফোর্স পাঠিয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •